ঢাকা, বুধবার ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১লা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

৮ মাসে রপ্তানি আয় ২ হাজার ৫৮৬ কোটি ডলার

প্রকাশিত : 08:45 AM, 4 March 2021 Thursday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

করোনার মধ্যেও দেশের পণ্য রপ্তানি খুব একটা খারাপ করছে না। চলতি অর্থবছরের প্রথম আট মাসে (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) ২ হাজার ৫৮৬ কোটি ডলার বা ১ লাখ ১৯ হাজার ৮১০ কোটি টাকার পণ্য রপ্তানি হয়েছে। এই আয় তার আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ১ দশমিক শূন্য ৪৫ শতাংশ কম। রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) বুধবার প্রকাশিত রপ্তানি আয়ের তথ্যে দেখা যায়, গত ফেব্রুয়ারি মাসে প্রবৃদ্ধি ও লক্ষ্যমাত্রা স্পর্শ করতে পারেনি দেশের তৈরি পোশাক খাত। তবে চলতি অর্থবছরের আট মাসে ২০ বিলিয়ন ডলার রপ্তানি আয় করে মাইলফলক স্পর্শ করেছে তৈরি পোশাক খাত। এদিকে একক মাস হিসেবে ফেব্রুয়ারিতে রপ্তানি আয় অর্জিত হয়েছে ৩১৯ কোটি ২০ লাখ টাকা। লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৩৫ কোটি ৪০ লাখ ডলার।

ইপিবির প্রতিবেদনে দেখা যায়, চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরে সব ধরনের পণ্য রপ্তানিতে বৈদেশিক মুদ্রার লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪ হাজার ৫৫০ কোটি মার্কিন ডলার। গত অর্থবছর শেষে রপ্তানি আয় অর্জিত হয়েছে ৪ হাজার ৫৩ কোটি ৫০ লাখ ৪ হাজার ডলার। চলতি অর্থবছরের প্রথম আট মাসে রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২ হাজার ৬৮৩ কোটি ১০ লাখ ডলার। এই আট মাসে রপ্তানি আয় এসেছে ২ হাজার ৫৮৬ কোটি ২৩ লাখ ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩ দশমিক ৬১ শতাংশ কম। গত অর্থবছরের জুলাই-ফেব্রুয়ারি সময়ে রপ্তানি আয় অর্জিত হয়েছিল ২ হাজার ৬২৪ কোটি ১৮ লাখ ডলার।

সে হিসাবে রপ্তানি আয়ে প্রবৃদ্ধি কমেছে ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ। এদিকে একক মাস হিসেবে ফেব্রুয়ারিতে রপ্তানি আয় ও লক্ষ্যমাত্রা কোনোটাই পূরণ হয়নি। ফেব্রুয়ারি মাসে মোট রপ্তানি আয় অর্জিত হয়েছে ৩১৯ কোটি ২০ লাখ ডলার। লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৩৩৫ কোটি ৪০ লাখ ডলার। সেই হিসাবে লক্ষ্যমাত্রা কমেছে ৪ দশমিক ৮৩ শতাংশ। একই সঙ্গে ৩ দশমিক ৯২ শতাংশ কম প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে ফেব্রুয়ারি মাসে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দেশের রপ্তানি আয়ের প্রায় ৮৫ শতাংশ আসে তৈরি পোশাক খাত থেকে। এই খাত থেকে গত অর্থবছরে রপ্তানি আয় এসেছিল ৩ হাজার ৪১৩ কোটি ৩২ লাখ ডলার। চলতি অর্থবছরের জুলাই-ফেব্রুয়ারি সময়ে তৈরি পোশাক খাতের পণ্য রপ্তানি থেকে আয় হয়েছে ২ হাজার ১০৩ কোটি ৩০ লাখ ডলার। আগের অর্থবছরের একই সময়ে আয় এসেছিল ২ হাজার ১৮৪ কোটি ৭৫ লাখ ডলার। এ হিসাবে এ খাতে প্রবৃদ্ধি কমেছে ৩ দশমিক ৭৩ শতাংশ। প্রবৃদ্ধি কমার পাশাপাশি লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে পারেনি তৈরি পোশাক খাত। লক্ষ্যমাত্রা কমেছে ৪ দশমিক ৮৭ শতাংশ।

পরিসংখ্যানে দেখা যায়, গত আট মাসে নিট পোশাক রপ্তানি থেকে আয় এসেছে ১ হাজার কোটি ১৩৪ ডলার, যা আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ৪ দশমিক ৬ শতাংশ বেশি। একই সঙ্গে লক্ষ্যমাত্রা বেড়েছে ৩ দশমিক ৭৮ শতাংশ। অন্যদিকে ওভেন পোশাক রপ্তানি করে আয় হয়েছে ৯৬৯ কোটি ১২ লাখ ডলার, যা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ১১ দশমিক ৪৯ শতাংশ কম। পাশাপাশি ১৩ দশমিক ৩২ শতাংশ লক্ষ্যমাত্রা কমেছে ওভেনে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT