ঢাকা, মঙ্গলবার ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

শিরোনাম
◈ আগামী ১ জানুয়ারি ২০২০ চালু হচ্ছে ‘নগর অ্যাপ’: মেয়র আতিকুল ◈ এই মুহূর্তে ওমরায় যাওয়ার সুযোগ নেই : ধর্মবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ◈ বাংলাদেশ থেকে ব্যান্ডউইথ কিনবে সৌদি-ভারত-নেপাল-ভুটান ◈ বঙ্গবন্ধুর খুনিরা বাংলাদেশের পরিপন্থী পাকিস্তানের এজেন্ট ছিল ॥ আবদুল মুহিত ◈ ঢাকার জলাবদ্ধতার মূল কারণ খাল দখল ॥ তাপস ◈ সাজার রায়ে আমৃত্যু উল্লেখ না করলে যাবজ্জীবন ৩০ বছর ◈ দুদকের পরামর্শে কাজ করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় স্বাস্থ্যের দুর্নীতি বন্ধে ১৬ সুপারিশ ◈ বিধিমালা শিথিল সঞ্চয়পত্র কিনতে পারবে অটিস্টিক প্রতিষ্ঠান ◈ কাঙ্ক্ষিত হারে কমছে না খেলাপি ঋণ ◈ আইনের খসড়া প্রণয়ন খেলাপি ঋণ আদায়ে অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি

১২ দিনেই এক বিলিয়ন ডলারের রেকর্ড রেমিটেন্স

প্রকাশিত : 08:59 AM, 17 November 2020 Tuesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

করোনাভাইরাস মহামারীর চলমান সঙ্কটের মধ্যেও প্রবাসী আয়ে উর্ধমুখী ধারা অব্যাহত রয়েছে। চলতি মাসের ১২ দিনেই ১০৬ কো৬০ লাখ (এক দশমিক শূন্য ৬৬ বিলিয়ন) মার্কিন ডলারের রেমিটেন্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা। বাংলাদেশী মুদ্রায় (প্রডলার ৮৪ টাকা ধরে) যার পরিমাণ আট হাজার ৯৫৪ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। সোমবার অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

অর্থ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দেশের ইতিহাসে একক মাসের মাত্র ১২ দিনে এর আগে কখনও এত পরিমাণ রেমিটেন্স আসেনি। বাংলাদেশের ইতিহাসে এটি একটি বিরল ঘটনা। চলতি ২০২০-২০২১ অর্থবছরে জুলাই থেকে ১২ নবেম্বর পর্যন্ত মোট রেমিটেন্স এসেছে ৯৮৯ কো১০ লাখ ডলার (৯.৮৯১ বিলিয়ন) মার্কিন ডলার। যা গতবছরের একই সময়ের চেয়ে প্রায় ৪৩ দশমিক ৪২ শতাংশ বেশি। গত ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে এই একই সময়ে রেমিটেন্স এসেছিল ৬৮৯ কোটি৭০ লাখ (৬.৮৯৭ বিলিয়ন) মার্কিন ডলার। প্রবাসী আয়ের এ উর্ধমুখী ধারা অব্যাহত থাকার জন্য সরকারের ২ শতাংশ নগদ প্রণোদনাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপের গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব রয়েছে।

এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, অপ্রত্যাশিত অভিঘাত কোভিড-১৯ এর প্রভাবে বড় ধরনের অর্থনৈতিক সঙ্কটে পড়েছে সারাবিশ্ব। এই সময়টাতে রেমিটেন্স যোদ্ধারা কষ্ট করে অর্থ প্রেরণ করে আমাদের অর্থনীতিকে গতিশীল রাখতে চালকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছেন।

তিনি বলেন, ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে বিদেশ থেকে বৈধপথে রেমিটেন্স তথা প্রবাসী আয় পাঠালে ২ শতাংশ নগদ প্রণোদনা দেয়া হবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়েছিল। এর পরপরই রেমিটেন্স বাড়তে শুরু করলে অনেকেই বলা শুরু করলেন এগুলো ঠিক নয়, থাকবে না, টেকসই নয়। চলতি অর্থবছরের প্রথম তিন মাস যখন অসাধারণ এবং অবিশ্বাস্য গতিতে রেমিটেন্স অর্জিত হচ্ছিল তখন কর্মীরা তাদের কাজকর্ম বা ব্যবসা গুটিয়ে দেশে ফিরে আসছেনসহ বিভিন্ন মন্তব্য করতে শুরু করলেন। সেই সমস্ত লোকের সঙ্গে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থাও তাল মিলিয়ে বলতে শুরু করল এ প্রবাহ ঠিক নয়, টেকসই হবে না।

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, প্রণোদনা ঘোষণার পর থেকে এ পর্যন্ত রেমিটেন্স প্রবৃদ্ধির যে প্রবাহ, তাতে তাদের ভবিষ্যদ্বাণী ভুল প্রমাণিত হয়েছে এবং আমরা যে সঠিক ছিলাম আরও একবার তা প্রমাণিত হলো। চলতি নবেম্বরের ১২ তারিখ পর্যন্ত প্রবাসী আয় এসেছে এক বিলিয়ন ডলারেরও বেশি, যা দেশের ইতিহাসে মাত্র ১২ দিনে কখনও অর্জিত হয়নি। গড়ে প্রতি মাসে দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ওপরে প্রবাসী আয় অর্জন এটি ইতিহাসে একটি বিরল ঘটনা।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২০ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT