রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

‘স্বামীর পায়ের নিচে স্ত্রীর জান্নাত’ এই কথার কি ভিত্তি আছে?

প্রকাশিত : 06:22 PM, 2 November 2021 Tuesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

প্রশ্ন: প্রায়শ অনেককে বলতে দেখা যায়— স্ত্রীর জন্য ‘স্বামীর পায়ের নিচে জান্নাত’। এই কথাটির কোনো ভিত্তি আছে? নাকি এটি সম্পূর্ণ মানুষের বানানো কথা?

উত্তর: অনেকে কথাটিকে হাদিস হিসেবে পেশ করে থাকেন। যার আরবি হলো— الجنة تحت أقدام الأزواج অথচ হুবহ এ শব্দ-বাক্যে কোনো হাদিস পাওয়া যায় না।

সুতরাং এটিকে হাদিস হিসেবে বলা যাবে না। তবে কিছু হাদিসে এর মর্মার্থ পাওয়া যায়, বিধায় কথাটাকে সম্পূর্ণ মিথ্যাও বলা যাবে না।

যেমন এক হাদিসে এসেছে— একবার এক নারী সাহাবি কোনো প্রয়োজনে রাসুলের (সা.) কাছে এলেন। যাওয়ার সময় রাসল (সা.) তাকে জিজ্ঞেস করলেন, তোমার কি স্বামী আছে? তিনি বললেন, জি আছে।
নবীজি বললেন, তার সঙ্গে তোমার আচরণ কেমন? সে বলল, আমি যথাসাধ্য তার সঙ্গে ভালো আচরণ করার চেষ্টা করি।

তখন নবীজি বললেন, فانظري أين أنت منه، فإنما هو جنتك ونارك হ্যাঁ, তার সঙ্গে তোমার আচরণের বিষয়ে সজাগ থাকো, কারণ সে তোমার জান্নাত বা তোমার জাহান্নাম।

(মুআত্তা মালেক, হাদিস ৯৫২; মুসনাদে আহমাদ, ৪/৩৪১ হাদিস ১৯০০৩; মুসতাদরাকে হাকেম, হাদিস ২৭৬৯; সুনানে কুবরা, বায়হাকি, হাদিস ১৪৭০৬)

অপর হাদিসে এসেছে, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন—
إذا صلت المرأة خمسها ، وصامت شهرها ، وحصنت فرجها ، وأطاعت زوجها قيل لها : ادخلي الجنة من أي أبواب الجنة شئت

নারী যখন পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ ঠিকমতো আদায় করবে, রমজানের রোজা রাখবে, আপন লজ্জাস্থানের হেফাজত করবে, স্বামীর আনুগত্য করবে, তখন সে জান্নাতের যেই দরজা দিয়ে ইচ্ছা প্রবেশ করতে পারবে। (সহিহ ইবনে হিব্বান, হাদিস ৪১৬৩)

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT