ঢাকা, মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১, ৩০শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

স্পেনের পর্যটন খাতে ধস, পর্যটক কমেছে ৭৫ শতাংশ

প্রকাশিত : 11:22 AM, 2 September 2020 Wednesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

ইউরোপে এক সময় করোনা প্রাদুর্ভাবের কেন্দ্রস্থল স্পেনে দীর্ঘদিন লকডাউনে মারাত্মক সংকটে পড়ে পর্যটন নির্ভর অর্থনীতি। দেশটির জাতীয় পরিসংখ্যান ইনস্টিটিউট (এনআইএস) মঙ্গলবার প্রকাশিত হিসাবে জানিয়েছে, ২০১৯ সালের তুলনায় এ বছরের জুলাইয়ে দেশে আন্তর্জাতিক পর্যটক ৭৫ শতাংশ কমেছে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন মঙ্গলবার দেশটির জাতীয় পরিসংখ্যান ইনস্টিটিউটের দেয়া হিসাবের বরাতে জানিয়েছে, এ বছরের জুলাইয়ে স্পেন ভ্রমণে গেছেন ২৫ লাখ আন্তর্জাতিক পর্যটক; যা গত বছরের জুলাইয়ের তুলনায় ৭৫ শতাংশ কম। এ ছাড়া জনপ্রতি পর্যটকের ব্যয় ১৭.৮ শতাংশ কমে ৯৯৪ ইউরোতে দাঁড়িয়েছে।

দেশটির পর্যটন মন্ত্রী ফার্নান্দো ভালদেস বলেন, কোভিড-১৯ মহামারির লকডাউন বিধিনিষেধ ও সীমান্ত চলাচল বন্ধ থাকার কারণে পর্যটন খাতে কতটা নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে এই পরিসংখ্যানে তা স্পষ্ট। তিনি অবশ্য বলেছেন, আন্তর্জাতিক ভ্রমণ নিয়ে আস্থাহীনতার কারণে শুধু স্পেন নয় এর প্রভাব বিশ্বব্যাপী অনুভূতহয়েছে।

ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশন (আইএটিএ) জানিয়েছে, জুনের তুলনায় জুলাইয়ে ইউরোপে আন্তর্জাতিক ভ্রমণকারীর সংখ্যা কিছুটা বাড়লেও এখনও তা গত বছরের চেয়ে ৮৭.১ শতাংশ কম।

সিএনএন এর প্রতিবেদন অনুযায়ী বৈশ্বিক সংযোগ পুনঃস্থাপন ছাড়াও প্রত্যেক দেশের সীমান্ত খুলে দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট সরকারগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে আইএটিএ। এ দিকে করোনায় ধুকতে থাকা বিমান পরিবহন সংস্থাগুলোকে দেয়া আর্থিক সুযোগ অব্যাহত রাখারও আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT