মঙ্গলবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় দোকান ঘর ভেঙ্গে ফেলানোর ঘটনায় ব্যবসায়ী সিরাজ হার্টষ্টোকে মৃত্যু

প্রকাশিত : 07:19 PM, 30 September 2020 Wednesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

সাতক্ষীরার কলারোয়ায় দোকান ঘর ভেঙ্গে ফেলানোর ঘটনায় এক ব্যবসায়ী ষ্টোক করে মারা গেছেন বলে পরিবারের পক্ষ থেকে দাবী করা হয়েছে। বুধবার সকালে নিহতের ভাই মিজানুর রহমান জানান-উপজেলার চন্দনপুর ইউনিয়নের গয়ড়া বাজারে বাপ-দাদার রেখে যাওয়া প্রায় শত বছরের জমিতে ছোট ছোট দোকান ঘর করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন। সম্প্রতি আম্পানে তাদের দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়। দোকানে পানি পড়ে মালামাল নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে আলাপ আলোচনা করে সেই দোকান ঘর পূর্নায় ঠিক করা হয়। কিন্তু কিছু অসাধু ব্যক্তি দেয়া অভিযোগের ভিত্তিতে গত ২৭ সেপ্টেম্বর বুধবার বিকালে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সহকারী কমিশনার (ভুমি) আকতার হোসেন, সার্ভেয়ার সজল হোসেন ও ইউনিয়ন ভুমি কর্মকর্তা মহাসিন হোসেন উপস্থিত হয়ে বিনা নোর্টিশে তাদের দু’ভাইয়ের দোকান ঘর ভেঙ্গে দেয়। এঘটনায় তার বড় ভাই হার্টষ্টোক করে বুধবার দিনগত রাত ২টার দিকে নিজ বাড়ীতে মারা যান। তিনি আরো বলেন-তাদের রেকর্ডিয় জমির সামনের অংশে সরকারী জমি আছে যা তার বাপ-দাদারা প্রায় শত বছর ধরে ভোগ দখল করে আসছেন। তাদের বাড়ীতে যাতায়াতের এক মাত্র পথও ওই জমির সামনে দিয়ে। মৃতের ছেলে রুহুল কুদ্দুস ও আলামিন জানান-চন্দনপুর ও গয়ড়া মৌজায় প্রায় ১একর ৫৮শতক জমি রয়েছে। যা সরকারের ১খতিয়ানের জমি। তারাও বহু বছর ধরে দোকান পাট করে ভোগ দখল করে আসছে। কিন্তু তাদের কোন সমস্য হচ্ছেনা। হঠাৎ করে কোন কারণ ছাড়াই তাদের জমি থেকে দোকান ঘর উচ্ছেদ করা হলো। দোকান ঘর বানানোর আগেও কেউ কোন অভিযোগ করেন নি। দোকান ঘর বানানোর পরে কেন এই দোকান ভাঙ্গা হলো সেটার কোন কারণ তারা বলতে পারছেন না। মৃতের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবী করছেন যে ১শ বছর ধরে ওই জমিতে তারা বসবাস করে আসছেন তাই সরকারের পক্ষ থেকে তাদের নামে বন্দোবস্ত বা ডিসিআর দেয়া হোক। এবিষয়ে চন্দনপুর ইউনিয়নের ভুমি কর্মকর্তা মহাসিন হোসেন জানান, সরকারী জমি তাদের দখলে থাকায় উচ্ছেদ করা হয়েছে। পরবর্তীতে এই বাজারের অন্যান্য সরকারি জমি দখল মুক্ত করা হবে। গয়ড়া বাজার কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে বিষয়টি জানানো হয়েছে। চন্দনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম মনি জানান,দীর্ঘ বছর ধরে ওই জমিতে তারা দোকান ঘর নির্মান করে ব্যবসা করে আসছেন। কি কারণে দোকান ঘর উচ্ছেদ করা হলো তা তিনি বলতে পারনে না। তবে ওই বাজারে প্রায় ২শ’মত দোকান ঘর রয়েছে। যা সরকারী খাস জমিতে রয়েছে। তাদের কোন সমস্যা হচ্ছে না। তিনি খাস জমিতে বসবাসকারী দোকান মালিকদের স্ব স্ব জমিতে ডিসিআর দেয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT