শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২, ৮ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
◈ ব্যাংকারদের সর্বনিম্ন বেতন বেঁধে দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক, ১ মার্চ থেকে কার্যকর ◈ জমির ক্ষেত্রে পাওয়ার অব অ্যাটর্নি বন্ধ হচ্ছে ◈ মারধর করে যুবককে মেরে ফেলল বনভোজনের যাত্রীরা ◈ করোনায় শনাক্ত ১০ হাজার ছাড়াল ◈ এমন কোনো দেশ নাই যেখানে এনকাউন্টার ঘটে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ শাবিতে অনশনরত দুইজন হাসপাতালে, চিকিৎসায় মেডিকেল টিম ◈ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হলেই সাংবাদিককে গ্রেফতার নয়, ডিসিদের আইনমন্ত্রী ◈ পুলিশ সার্জেন্ট টাকা চাননি, ক্ষমা চেয়েছেন সেই চীনা নাগরিক ◈ অসহিষ্ণুতায় অনেক ছোট ঘটনা বড় রূপ পায় ◈ চালের কৃত্রিম সংকট অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিন

লকডাউনে সমবায় অধিদপ্তর বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে ডেসটিনি মাল্টিপারপাস এর সদস্যরা

প্রকাশিত : 10:38 PM, 22 April 2021 Thursday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

লকডাউনে সমবায় অধিদপ্তর বন্ধ, ভোগান্তিতে ডেসটিনি সদস্যরা !

সরকার ঘোষিত চলমান লকডাউনে সমবায় অধিদপ্তর বন্ধ থাকায় ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেডের (ডিএমসিএসএল) সদস্যরা নবায়ন ফি জমা দিতে পারছে না। লকডাউনে যান চলাচল বন্ধ থাকার পরও কষ্ট করে সমবায় অধিদপ্তরে পৌঁছানোর পর ডিএমসিএসএল এর অনেক সদস্য তাদের নবায়ন ফি ৫০০ টাকা জমা দিতে না পেরে ভোগান্তির শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

সরেজমিনে নোটিশে দেয়া ঠিকানায় গিয়ে এডহক কমিটির কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। তাছাড়া সদস্যপদ নবায়নের জন্য ডিএমসিএসএল এর অনেক সদস্য সেখানে আসলেও কেউ টাকা জমা দিতে পারছে না। তাদের অনেকেই সাংবাদিকদের কাছে তাদের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন।

সমবায় অফিসের সামনে একজন ভুক্তভোগির সাথে এ বিষয়ে ডেসটিনি মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেডের (ডিএমসিএসএল) শেয়ার হোল্ডার মো. ফারুক সাংবাদিকদের বলেন, তিনি সমবায় অধিদপ্তরে নবায়ন ফি জমা দিতে এসেছেন কিন্তু সবকিছু বন্ধ থাকায় অনেক দূর থেকে এসেও কোন কাজ হল না। তিনিও ভোগান্তির শিকার বলে জানান। তিনি আরো বলেন, ”আমি মনে করি সমবায় অধিদপ্তর খোলা রাখা উচিত। আর লকডাউনের পর সময় বাড়ানো উচিত। তা না হলে কেউই সদস্যপদ নবায়ন করতে পারবে না”।

এ বিষয়ে ডিএমসিএসএল এর সাবেক ট্রেজারার ও শেয়ার হোল্ডার এবং ডেসটিনি ২০০০ এর পরিচালক মো: কামরুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, লকডাউনে তো সব সরকারী অফিসই বন্ধ এদিকে সদস্যপদ নবায়নের শেষ তারিখ ২৭ এপ্রিল আর লকডাউন ২৮ তারিখ পর্যন্ত চলবে সে ক্ষেত্রে সঙ্গত কারনেই ২৭ তারিখের মধ্য কোন কিছু করাই সম্ভব না। এটা তো ইন্টারনাল একটা সিদ্ধান্তের ব্যাপার। ২৮ তারিখের পর এডহক কমিটি আলোচনার মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে যে সিদ্ধান্ত নিবে সেটাই কার্যকর হবে। লকডাউনের পর কমিটি এ বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিবে।

এ বিষয়ে ডিএমসিএসএল এর একজন শেয়ার হোল্ডার এবং ডেসটিনি ২০০০ এর পরিচালক বিপ্লব বিকাশ সাংবাদিকদের বলেন, সদস্য ফি জমা নেওয়ার সময় তো বাড়াতেই হবে। ওরা যে সময় দিয়েছে এটা তো অকার্যকর একটা সময়। সদস্য নবায়ন ফি জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৭ এপ্রিল আর এ সময়টা পুরোটাই লকডাউন। আর লকডাউনে ওনাদের অফিস বন্ধ, ওনারা অফিসে আসে না। সুতরাং এটা অকার্যকর একটা বিষয়, সদস্যদের ভোগান্তি ছাড়া কিছু না।

ডিএমসিএসএল এর অপর একজন শেয়ার হোল্ডার ও এডহক কমিটির প্রাক্তন সদস্য মো: খোরশেদ আলম সাংবাদিকদের বলেন , এডহক কমিটি যে সিদ্ধান্ত নিবে আমরা তাদের সাথে একমত কারণ এর সাথে সাড়ে ৮ লক্ষ মানুষের স্বার্থ জড়িত। অবশ্য এ বিষয়ে এডহক কমিটির বর্তমান সদস্য মো: আবুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, আমি এ বিষয়ে কোন মন্তব্য করতে চাচ্ছি না।

এ বিষয়ে এডহক কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায় এবং এডহক কমিটির সদস্য মহসিন মজুমদারের সাথে ফোনে যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি।

সোসাইটির অপর এক সদস্য মো: উজ্জল বলেন, ডিএমসিএসএল এর সকল সদস্যদের সদস্যপদ হালনাগাদ করার সিদ্ধান্তটি ইতিবাচক হলেও সদস্যদের ফি জমা নেওয়ার নোটিশ দিয়ে অফিস বন্ধ রাখা এবং সদস্যদের ভোগান্তিতে ফেলা খুবই হতাশাব্যঞ্জক। আমি চাই না আমার মত সবাই বিড়ম্বনায় পড়ুক।

নাম প্রকাশে অনৈচ্ছুক এডহক কমিটির একজন সাবেক সদস্য বলেন, সমবায় অধিদপ্তরের নোটিশের পর ডিএমসিএসএল এর সদস্যপদ নবায়নের টাকা জমা দিতে গিয়ে দেখেন সমবায় অধিদপ্তর বন্ধ। বাইরের কোন লোক ভিতরে ঢুকতে পারছে না। মেইন গেট ভিতর থেকে লক করা এবং সমবায় অধিদপ্তরের সকল কার্যক্রমও বন্ধ।তিনি আরো বলেন, লকডাউনে ডিএমসিএসএল সদস্যদের তথ্য হালনাগাদের নোটিশ সমবায় অধিদপ্তরের আই ওয়াশ ছাড়া কিছু নয়।

প্রসঙ্গত, সমবায় অধিদপ্তরের ঢাকা বিভাগীয় যুগ্ম নিবন্ধকের দফতর থেকে পত্রিকায় একটি নোটিশ দেয়া হয়েছে। নোটিশে বলা হয়েছে যে, ডিএমসিএসএলকে পুনরায় সচল করার লক্ষে ৮ লক্ষ ৫০ হাজার সদস্যদের সদস্যপদ নবায়ন বা হালনাগাদ করতে হবে। সোসাইটির সদস্যদের মধ্যে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে বর্তমানে সক্রিয় সদস্যদের সমন্বয়ে একটি হালনাগাদ ভোটার তালিকা প্রণয়ণের জন্য প্রত্যেক সদস্যকে কমপক্ষে ৫০০ টাকা সঞ্চয় আমানত জমা দিতে হবে।

নোটিশে আরো বলা হয়েছে যে, যেসকল সদস্য নোটিশ মোতাবেক নির্ধারিত সময় ২৭ এপ্রিলের মধ্যে উল্লেখিত ৫০০ টাকার সঞ্চয় আমানত জমা করে সদস্য রেজিস্ট্রারের তথ্য হালনাগাদ করবেন শুধু মাত্র তারাই সমবায় সমিতির আইন ২০০২ ও ২০১৩ অনুযায়ী খসড়া ভোটার তালিকায় অর্ন্তভূক্ত হবেন। পরবর্তীতে তারা সোসাইটির কাউন্সিল নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন ও নিজে প্রার্থী হতে পারবেন!

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT