শুক্রবার ২১ জানুয়ারি ২০২২, ৮ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম
◈ ব্যাংকারদের সর্বনিম্ন বেতন বেঁধে দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক, ১ মার্চ থেকে কার্যকর ◈ জমির ক্ষেত্রে পাওয়ার অব অ্যাটর্নি বন্ধ হচ্ছে ◈ মারধর করে যুবককে মেরে ফেলল বনভোজনের যাত্রীরা ◈ করোনায় শনাক্ত ১০ হাজার ছাড়াল ◈ এমন কোনো দেশ নাই যেখানে এনকাউন্টার ঘটে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ শাবিতে অনশনরত দুইজন হাসপাতালে, চিকিৎসায় মেডিকেল টিম ◈ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হলেই সাংবাদিককে গ্রেফতার নয়, ডিসিদের আইনমন্ত্রী ◈ পুলিশ সার্জেন্ট টাকা চাননি, ক্ষমা চেয়েছেন সেই চীনা নাগরিক ◈ অসহিষ্ণুতায় অনেক ছোট ঘটনা বড় রূপ পায় ◈ চালের কৃত্রিম সংকট অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নিন

যেখানে আছেন সেখানেই ঈদ করুন প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা,ঘটছে তার উল্টো

প্রকাশিত : 12:16 PM, 8 May 2021 Saturday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

জনগণ সকল ক্ষমতার উৎস বলা হয়ে থাকে।আসলেই জনগণই পারে সবকিছু চেঞ্জ করতে।কিন্ত কোথায় সে জনগণ।করোনা ভাইরাসের মধ্যে ঘরে থাকা,সোশ্যাল ডিসটেন্স মেইনটেইন ইত্যাদি জনগণের কানে ঢুকেছে বলে মনে হয় না।

দেশে করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ কিছুটা কমে এলেও আশঙ্কা কমেনি। প্রতিবেশী ভারতের ভয়াবহ অবস্থায় তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা করছেন অনেকেই। তাই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঈদের কেনাকাটা ও ঘরে ফেরা নিয়ন্ত্রণের কথা উঠেছে। খোদ প্রধানমন্ত্রী আহবান জানিয়েছেন দেশজুড়ে করোনাভাইরাস আরও ছড়িয়ে দেয়া বন্ধ করতে ঘোরাঘুরি না করে পবিত্র ঈদুল ফিতর নিজ নিজ অবস্থানে থেকেই উদযাপন করতে। প্রধানমন্ত্রীর আহবান খুবই সময়োপযোগী। কিন্তু পরিস্থিতি ভিন্ন।কে শোনে কার কথা।সাধারণ জনগণের মধ্যে করোনা ভীতি উধাও।মানছেন না স্বাস্থ্য বিধি।

এ আহবান প্রচারের পাশাপাশি প্রতিটি টিভি চ্যানেলেই ঈদের ঘরমুখো মানুষের ভিড়ে ভয়াবহ জনজটের খবর দেখা গেছে। ঘোষিতভাবে দূর পাল্লার বাস, নৌযান বন্ধ থাকলেও অবৈধ নৌযান, প্রাইভেট-কার, মাইক্রোবাস, অটোরিকশায় মানুষ ছুটছে স্বজনদের সাথে ঈদ করতে। এসব যানে গাদাগাদি করে যাত্রী তোলা হচ্ছে। নেই মাস্ক ও স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই। ফেরিঘাটে উপচে পড়া ভিড়। দ্বিগুণেরও বেশি খরচ ও ভোগান্তি উপেক্ষা করে এমন ভিড়ভাট্টায় করোনা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে ভাবতেও বুক কাঁপে।

জেলা শহরের অবস্থাও ভিন্ন নয়। আন্তঃজেলা বাস বন্ধ থাকার কথা থাকলেও রাজশাহীতে আশপাশের জেলায় বাস চলাচল শুরু হয়েছে। অঘোষিত এই যাত্রায় যাত্রীদের অতিরিক্ত ভাড়া আর ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। আর মাইক্রো-অটোরিকশাতে প্রকাশ্যেই যাত্রী ডেকে ডেকে তোলা হচ্ছে আশপাশের জেলায় যাবার জন্য। এসব যানবাহনে স্বাস্থ্যবিধি মানারও ব্যবস্থা দেখা যায়নি।

এমন অবস্থায় পরিবহনের ক্ষেত্রে সরকারি নির্দেশনা ও প্রধানমন্ত্রীর বাস্তবসম্মত আহবান বাস্তবায়ন নিয়ে চরম অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। বাস্তবতা অস্বীকার করে আর যাই হোক বিপদমুক্ত থাকার নিশ্চয়তা মেলে না। প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিকদের কাছ থেকে পরিকল্পিত পদক্ষেপও কি আশা করা যায় না ? লকডাউনের মতো সবকিছুই যদি ঢিলেঢালা হয়ে পড়ে তবে করোনা যে জোরালো হয়ে উঠবে সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না। সংক্রমণ ও মৃত্যু যদি আবারও ঊর্ধ্বমুখী হয়ে ওঠে তবে আপনি, আমি, কেউই কি নিরাপদ থাকবো ? তাই আসুন,আমরা যেখানে আছি সেখানেই ঈদ উদযাপন করি। নিজে নিরাপদ থাকি, অন্যদেরও নিরাপদে রাখি।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT