বুধবার ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

যাদের উৎস বন্দুকের নল তাদের মুখে জনস্বার্থের কথা মানায় না

প্রকাশিত : 10:22 AM, 4 September 2020 Friday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

বিএনপিকে উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যাদের রাজনীতির উৎস বন্দুকের নল, জনগণ নয়, তাদের মুখে জনস্বার্থের কথা মানায় না।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেতু ভবনে নিজ মন্ত্রণালয়ের অধীনে নির্মাণাধীন বিভিন্ন প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি পর্যালোচনা বিষয়ে সেতু সচিব মোঃ বেলায়েত হোসেনের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন। কাদের তার সরকারী বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এতে যুক্ত হন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে দেশ ও জনগণের স্বার্থ সবার আগে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা দেশ বিকিয়ে দিয়ে, স্বাধীনতার চেতনাকে ভূলুণ্ঠিত করে এবং হত্যা ও সন্ত্রাসনির্ভর রাজনীতি করে তাদের মুখে গণতন্ত্রের দাবি শোভা পায় না।

বিএনপি নেত্রীর ক্যারিশমা দেশকে দুর্নীতিতে পর পর পাঁচবার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করেছিল, তার ক্যারিশমায় ২১ আগস্ট ঘটিয়ে জজ মিয়া নাটক তৈরি করেছিল। হাওয়া ভবনের নামে লুটতরাজের খোয়াব ভবন। এটাই তাদের ক্যারিশমাটিক লিডারশিপের নমুনা। খালেদা জিয়া ক্ষমতায় থাকাকালীন ভারত সফরে গিয়ে গঙ্গার পানি চুক্তির কথা ভুলে গিয়েছিলেন। নরেন্দ্র মোদির বিজয়ের খবরে ভারতীয় দূতাবাসের গেটে ছুটির দিনে ফুল ও মিষ্টি নিয়ে কারা দাঁড়িয়েছিল, এদেশের মানুষ ভাল করেই জানে।

তিনি বলেন, একুশ বছর প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে বৈরী সম্পর্ক তৈরি করে তারা কিছুই আদায় করতে পারেনি। এদেশের যত অর্জন সবকিছু শেখ হাসিনার আওয়ামী লীগের মাধ্যমে।

কাদের আরও বলেন, বিপরীতে শেখ হাসিনা দেশের স্বার্থকে প্রাধান্য দিয়ে সীমান্ত সমস্যা, ছিটমহল বিনিময়, সমুদ্র বিজয় করেছেন। বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন দেশবিরোধী বিদেশী শক্তিরই প্রতিভূ ছিল।

তিনি বলেন, জনস্বার্থ নাকি সরকারের লক্ষ্য নয়, বিএনপি মহাসচিব এমন অভিযোগ করেছেন। আমি বলতে চাই, আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে জনগণের স্বার্থকে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে আসছে বলেই মানুষের আস্থায় পরিণত হয়েছে। আওয়ামী লীগ এদেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও বৃহত্তর রাজনৈতিক দল। মাটি ও মানুষের দল হিসেবে সংগঠনটি জনমানুষের হৃদয়ের গভীরে অবস্থান করছে। বিএনপিই জনস্বার্থ সুরক্ষায় অবিশ্বস্ত, বিপরীতে আওয়ামী লীগ জনআস্থার প্রতীক। গণপরিবহনে সরকার নির্ধারিত ভাড়া এবং স্বাস্থ্যবিধি মানতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে সারাদেশে যে অভিযান চলছে, তা আরও জোরদার করা হচ্ছে বলে জানিয়ে সড়ক মন্ত্রী বলেন, গত এক সেপ্টেম্বর থেকে দেশব্যাপী গণপরিবহন আগের ভাড়ায় ফিরেছে। গত দু’দিনে অনেক পরিবহন শর্ত মেনে পুরনো ভাড়া আদায় করলেও কিছু কিছু পরিবহনের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্যবিধি ভঙ্গসহ কিছু অভিযোগ পাওয়া যায়। যাত্রী ওঠা বা নামার ক্ষেত্রে দরজায় ভিড় এড়াতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, ঢাকা ও চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহসহ সারাদেশে বিভাগীয় পর্যায়ে মোট ৫৩টি মোবাইল কোর্ট পরিচালিত হয়। শর্ত না মেনে গাড়ি চালানোয় ১৯টি মামলা এবং তিন লাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে গত দু’দিনে। এছাড়া জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী অফিসাররাও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছেন। আমাদের পুলিশ বাহিনী যথেষ্ট সহযোগিতা করছেন। আজ অভিযান আরও জোরদার করা হবে।

যেসব পরিবহন শর্ত মেনে ভাড়া আদায় করছে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে তাদের ধন্যবাদ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, যে সকল পরিবহন স্বাস্থ্যবিধি মানছে না সে সকল মালিক-শ্রমিক যাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গাড়ি চালানোয় তৎপর হন, তাদের কাছে বিশেষভাবে অুনরোধ করছি জনস্বার্থে।

মাস্ক পড়ায় যাত্রীদের উদাসীনতায় উদ্বেগ প্রকাশ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাদের বলেন, আমি যাত্রী সাধারণকে ভ্রমণকালে অবহেলা না করে মাস্ক পরিধানের অনুরোধ জানাচ্ছি। আবার চালক-হেল্পার মাস্ক না পরে কোন রকম গলার সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখেন। এটা তো লোক দেখানো মাস্ক পরা। মাস্ক যেভাবে নিয়ম সেভাবে পরতে হবে।

বার বার আন্দোলন-নির্বাচনে ব্যর্থ হওয়া প্রমাণ করে বিএনপি জনস্বার্থ সুরক্ষায় অভ্যস্ত না মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের এই সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনার কাছে দেশ ও জনগণের স্বার্থ সবার আগে। যারা দেশ বিকিয়ে দিয়ে স্বাধীনতার চেতনাকে লুণ্ঠিত করে, ইতিহাসকে বিকৃত করে, আর হত্যা, ষড়যন্ত্র, সন্ত্রাসনির্ভর রাজনীতি করে তাদের মুখে জনস্বার্থের কথা শোভা পায় না। জনগণও তা বিশ্বাস করে না।

সেতু বিভাগের অধীন চলমান বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প সময়মতো শেষ করার তাগিদ দিয়ে মন্ত্রী বলেন, সঙ্কট যতই থাক উন্নয়ন থেমে থাকবে না। আমরা সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাই। তাই কাজের প্রতি সকলের যতœবান হওয়ার পরামর্শ দেন মন্ত্রী। সেইসঙ্গে বিভিন্ন প্রকল্পের সর্বশেষ অগ্রগতি নিয়েও কথা বলেন তিনি।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT