ঢাকা, শনিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ১০ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

শিরোনাম

মৌলবাদের বিরুদ্ধে তার লেখনির শক্তি রুদ্রকে রুপান্তিত করেছিল দ্রহীও প্রতিকে-স্বরণানুষ্ঠানে বক্তরা

প্রকাশিত : 09:01 PM, 16 October 2020 Friday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

সাহস ও স্বপ্নে, শিল্প ও সংগ্রামে আপদমস্তক সমর্পিত এই কবি ছিলেন রুদ্র। তার লেখনির মাধ্যমে স্বল্পায়ু জীবনকে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন তারুণ্যের দীপ্র সড়কে। নিজেকে মিলিয়ে নিয়েছিলেন আপামর নির্যাতিত মানুষের আত্মার সঙ্গে, হয়ে উঠেছিলেন তাদেরই কন্ঠস্বর। জাতির পতাকা আজ খামচে ধরেছে সেই পুরোনো শকুন’– এই নির্মম সত্য অবলোকনের পাশাপাশি কবি রুদ্র উচ্চারণ করেছিলেন ‘ভুল মানুষের কাছে নতজানু নই’। যাবতীয় অসাম্য, শোষণ ও ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে অনমনীয় অবস্থান তাঁকে পরিণত করেছিলো ‘তারুণ্যের দীপ্ত প্রতীক’-এ। একই সঙ্গে তাঁর কাব্যের আরেক প্রান্তর জুড়ে ছিলো স্বপ্ন, প্রেম ও সুন্দরের মগ্নতা। মাত্র ৩৪ বছরের স্বল্পায়ু জীবনে তিনি সাতটি কাব্যগ্রন্থ ছাড়াও গল্প, কাব্যনাট্য এবং ‘ভালো আছি ভালো থেকো’ সহ অর্ধ শতাধিক গান রচনা ও সুরারোপ করেছেন প্রতিভাবান এই কবি। তার জীবনে এসেছিল মাত্র ৩৪ টি বসন্ত এই ৩৪ বছরে সেই শৈশব থেকেই লেখা প্রতি যে মননিবেশ ছিল তার কারনেই আজও তরুন প্রজন্মের কাছে তারুন্যের দীপ্ত প্রতীক হিসাবে পরিচিত। বক্তারা আরো বলেন মুক্তিযোদ্ধা পরবর্তী সময় মৌলবাদের বিরুদ্ধে তার লেখনি শক্তি রুদ্রকে রুপান্তিত করেছিল দ্রহীও প্রতিকে। বক্তরা আরো বলেন
রুদ্রের স্বপ্নে কে লালন করে আগামী তে তোমাদের সারিত শক্তিকে আরো লালিত করতে হবে। কবি রুদ্রের সময় তথ্যপ্রযুক্তি এতো ব্যবহার ছিলো না। যার ফলস্রুতিতে কবি রুদ্র প্রযুক্তিগত দিক থেকে ছিলো বঞ্চিত। তবে রুদ্রের কবিতা তারুণ্যের হৃদয়ে গেঁথেছিলো বলেই রুদ্র হয়ে উঠেছিলেন তারুণ্যের কবি। আজ রুদ্রের কবিতা দুই বাংলা তে সমান জনপ্রিয়তা পেয়েছে। শুধু বাংলাদেশ না পচ্চিম বঙ্গেও কবির জনপ্রিয়তা ব্যপক ভাবে ঠাঁই করে নিয়েছে কবি প্রেমিদের হৃদয়ে। স্বাধীনতা পক্ষে কবিতা লেখার জন্য কবি রুদ্র লিখনি তে উঠে এসে ছিলো সেই স্বাধীনতার পক্ষে লেখা প্রতিবাদি কবিতা। শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল ৫ টায় মোংলা সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে মোংলা প্রেসক্লব চত্বরে আয়োজিত সরণানুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। এ সময়
সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট মোংলা শাখার আহব্বয়ক নূর আলম শেখ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে কবি রুদ্রের জীবনী ও তার সৃষ্টি কর্ম নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন,
মোংলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার কমলেশ মজুমদার, মোংলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ার, প্রেসক্লাবের সভাপতি এইচ,এম দুলাল, প্রভাষক নজরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক উৎপল মন্ডল, চাঁদপাই মেসেরসাহ্ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষাক
শ্বদেশ মন্ডল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রভাষক মনোজ কান্তি বিশ্বাস, নাজমুল হক সহ অন্যান্য অতিথি বৃন্দ। অনুষ্ঠানে কবি রুদ্র লেখা কবিতা আবৃতি ও গান পরিবেশন করা হয়। এর আগে সকাল ৮ টায় র‍্যালি সহকারে কবি রুদ্ররের সমাধীতে শ্রদ্ধা জানান রুদ্র স্মৃতি সংসদ, প্রথম আলো বন্ধু সভা মোংলা, মোংলা স্টুডেন্টস ক্যাটারস, মোংলা সাহিত্য পরিষদ, তারুণ্যের আলো, মিঠাখালী বাজার বনিক সমিতি, মিঠাখালী ১নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ, ইউ,পি ছাত্রলীগ সহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন। দিনটি উপলক্ষে মোংলার মিঠাখালিতে রুদ্র স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে বিকালে কবির বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনায় মিঠাখালী বাজার জামে মসজিদে অনুষ্টিত হয় দোয়া মাহফিল এবং ফুটবল খেলা ও মোংলা প্রেসক্লব চত্বরে সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT