ঢাকা, বুধবার ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

মারা গেলেন বলিউড অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রি

প্রকাশিত : 11:10 AM, 20 July 2021 Tuesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন বলিউড অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। শুক্রবার ভোর রাতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিন বার জাতীয় পুরস্কারজয়ী এই অভিনেত্রী।

বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। ২০২০ সালে তাঁর ব্রেন স্ট্রোকও হয়। তিনবার জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন অভিনেত্রী। তাঁর ম্যানেজার সংবাদ মাধ্যমের কাছে নিশ্চিত করেছে তাঁর মৃত্যুর খবর।

সুরেখার ম্যানেজার বিবেক সিদ্ধওয়ানি জানিয়েছেন, ‘তিনবার জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী সুরেখা সিক্রি হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার কারণে মারা গিয়েছেন। ব্রেন স্ট্রোক হওয়ার পর থেকে নানা ধরনের শারীরিক জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি। আজ সকালে পরিবারের উপস্থিতিতেই তাঁর মৃত্যু হয়।’

১৯৭৮ সালে ‘কিসসা কুর্সি কা’ দিয়ে বলিউডে অভিষেক। একাধিক ধারাবাহিক ও সিনেমায় তাঁকে দেখা গিয়েছে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে। সহ-অভিনেত্রী হিসেবে তিনবার জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন তমস (১৯৮৮), মাম্মো (১৯৯৫) এবং বাধাই হো (২০১৮) ছবির জন্য। জোয়া আখতারের ‘গোস্টে স্টোরিজ’ -এ শেষবার তাঁকে দেখা গিয়েছে। ‘জুবায়েদা’,‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস আইয়ার’ ও ‘রেইনকোট’-র মতো ছবিতেও কাজ করেছেন।

টেলিভিশনে কাজ করেছেন ‘এক থা রাজা এক থি রানী’, ‘পরদেশ মে হ্যায় মেরা দিল’, ‘মা এক্সচেঞ্জ’, ‘সাত ফেরে’ এবং ‘বালিকা বধূ’ ধারাবাহিকে।

সুরেখার জন্ম দিল্লিতে হলেও তাঁর শৈশব কাটে আলমোরা ও নৈনিতালে। বাবা ছিলেন ভারতীয় বিমান বাহিনীর একজন সেনা অফিসার। ১৯৬৮ সালে ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা থেকে নাট্যতত্ত্বে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT