ঢাকা, শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১, ২২শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

মাইগ্রেনের ব্যথা থেকে বাঁচার ২ উপায়

প্রকাশিত : 03:09 PM, 18 October 2020 Sunday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

অন্য রোগের মধ্যে মাথাব্যথাকে আমরা সবচেয়ে কম গুরুত্ব দিই। যতক্ষণ না পর্যন্ত এটি আমাদের দৈনন্দিন জীবনে ব্যত্যয় না ঘটায়। মাইগ্রেন সে ধরনেরই মাথাব্যথা।

মাইগ্রেনের মাথাব্যথা প্রায় প্রতিদিনই হয় না, এই ব্যথা সাধারণ হঠাৎ করে মাঝেমধ্যে হয়ে থাকে। মাসে একবার বা সপ্তাহে একবার বা দু-তিন মাস পর পর প্রচণ্ড মাথাব্যথা হতে পারে। ২০ থেকে ৪০ বছর বয়সীদের এই ব্যথা অন্যদের চেয়ে বেশি হয়ে থাকে।

দীর্ঘ সময় এই ব্যথা স্থায়ী হলে পুরো মাথাব্যথা হয়, যা ৪ ঘণ্টা থেকে ৭২ ঘণ্টা স্থায়ী হতে পারে।

মাইগ্রেনের ব্যথার আরেকটি লক্ষণ হলো, ব্যথার সঙ্গে দেখা যায় বমি বমি ভাব, অনেকের বমি হয়। এ ছাড়া ব্যথার সময় আলো অথবা শব্দ এগুলো সহ্য করা যায় না।

যাদের মাইগ্রেনের সমস্যা রয়েছে তারা দুটি অভ্যাস এড়িয়ে চললে ভালো। এতে মাইগ্রেনের সমস্যা থেকে দূরে থাকা সম্ভব।

পেট খালি না রাখা

দীর্ঘক্ষণ পেট খালি থাকলে মাইগ্রেনের ব্যথা বা সমস্যা শুরু হতে পারে। পেটে খালি থাকলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা মাথা চাড়া দেয়, যা মাইগ্রেনের ব্যথাকে আরও বাড়িয়ে দিতে পারে। এ ছাড়া মাইগ্রেনের ব্যথা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য প্রচুর পানি পান করুন। কারণ ডিহাইড্রেশন মাথাব্যথার বড় কারণ।

আবহাওয়া

অতিরিক্ত রোদে ঘোরাঘুরির কারণে মাইগ্রেনের ব্যথা হতে পারে। এ ছাড়া অতিরিক্ত গরম, অতিরিক্ত আর্দ্রতার তারতম্যে মাইগ্রেনের ব্যথা বাড়তে পারে।
চিকিৎসা ছাড়া দীর্ঘদিন মাইগ্রেনে ভূগোলে ডিপ্রেশন এ আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই এ রকম সমস্যা দেখা দিলে অবশ্যই চিকিৎসক এর পরামর্শ নিতে হবে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT