শনিবার ২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৬ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বগুড়ার মহাস্থান মাংস বাজার দুর্গন্ধময় বর্জ খানা দেখার কেউ নেই

প্রকাশিত : 06:21 PM, 15 June 2021 Tuesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

বগুড়া শিবগঞ্জ উপজেলার ঐতিহাসিক মহাস্থান মাংস বাজার। জেলার মধ্যে একটি অন্যতম বৃহৎ মাংস বাজার। জানা যায়, এখানে মাঝারী ও বড় মিলে প্রতিদিন (শুক্রবার ছাড়া) প্রায় ৭/৮ টি গরু এবং ২/৩ টি খাসি জবাই করা হয়। যার আনুমানিক ওজন ২৫- ২৬ মণ। ইহা ছাড়াও শুধুমাত্র শুক্রবারেই এখানে প্রায় ১৬ থেকে ২০ টা পর্যন্ত গরু জবাই করা হয়। স্থানীয় ক্রেতা ছাড়াও আশে পাশের বিভিন্ন এলাকা হতে পাইকারী ও খুঁচরা ক্রেতা এখানে এসে মাংস ক্রয় করেন বলে মাংস ব্যবসায়ীরা জানান। বর্তমানে এ মাংস বাজারে ইজারাদের নিকট থেকে বরাদ্দ প্রাপ্ত ৫ জন গো মাংস এবং ১ জন খাসির মাংস ব্যবসায়ী। বরাদ্দপ্রাপ্ত মাংস দোকান ব্যবসায়ীরা হলেন ফাইনুর ইসলাম, আব্দুল খালেক, আব্দুর রাজ্জাক, রেজাউল ইসলাম, রঞ্জু মিয়া ও মুকুল মিয়া। যারা দীর্ঘদিন যাবৎ এ বাজারে মাংস বিক্রি করে আসছেন। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, বর্তমানে প্রতি কেজি গরুর মাংস ৫২০/- থেকে ৫৪০/- এবং খাসির মাংস ৭২০/- থেকে ৭৫০/- টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাজারে বর্তমানে গরু ও ছাগলের দাম একটু বেশি হওয়ায় মাংসের দামও কিছুটা বেশি বলে ব্যবসায়ীরা জানান। তবে ইজারার মূল্য বেশি হওয়ার কারনে ইচ্ছা থাকলেও দামে কম রাখা যায় না বলে মাংস ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন। তবে দেশীয় বাজারের সাথে সামঞ্জস্য থাকায় মাংসের দাম ও ওজনে এখানকার অধিকাংশ ক্রেতা সাধারনের তেমন কোন অভিযোগ নেই। বাজারে আগত মাংস ক্রেতা, হেলাল উদ্দিন, সাতিক ও রফিকুল ইসলাম, জানান, আগে স্বপ্লমূল্যে মাংস পাওয়া যেত, তখন নিয়মিত মাংস কিনতেন। কিন্তু এখন দাম অনেক চড়া থাকায় অনেক দিন পর পর মাংস কিনেন বলে জানান। নিয়মিত মাংস ক্রেতা সাইদুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, শোনা যায় মাংস বাজার থেকে হাটের ইজারাদার অনেক টাকা আয় করেন। কিন্ত এ পট্টির তেমন কোন উন্নয়ন হয় না। বরং সবসময় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে পশু জবাই থেকে শুরু করে মাংস ক্রয় বিক্রয় করা হয়, যা মানুষ ও প্রাণীকূলের স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়িয়ে দেয় বলে তিনি জানান। বর্তমানে স্থায়ী শেড না থাকায় মাংস ব্যবসায়ীগণ একপ্রকার অস্থায়ী দোকানে মাংস বিক্রি করছেন। দেখা যায় বর্তমানে যেখানে মাংস বাজার চলছে সেখানে বর্জ ব্যবস্থাপনা ঠিক না থাকায় সবসময় দূর্গন্ধ লেগেই থাকে। সেকারনে ক্রেতা বিক্রেতা ও পথচারীদেরকে চলাচলে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। এ পরিস্থিতিতে সচেতন মহল এ মাংস বাজারের সঠিক পরিবেশ ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষেন নিশ্চিত করার জন্য প্রাণী সম্পদ কর্তৃপক্ষ, হাট ইজারাদার এবং উপজেলা প্রশাসনের নিয়মিত তদারকি ও সঠিক ব্যবস্থাপনা প্রত্যাশা করেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT