ঢাকা, শুক্রবার ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

শিরোনাম
◈ রক্ষক যেনো ভক্ষকের ভুমিকায় না যায়! কুষ্টিয়ায় অবৈধ উপায়ে কাউন্সিলরের অফিস নির্মাণের অভিযোগ ◈ বিশ্বে করোনায় মৃত্যু ৪২ লাখ ছাড়াল ◈ জনগণের পাশে দাঁড়ানোর অক্ষমতা ঢাকতে বিএনপির মিথ্যাচার : ওবায়দুল কাদের ◈ যার হয়ে জেলে ছিলেন মিনু, অবশেষে গ্রেপ্তার সেই কুলসুমী ◈ মন্ত্রিপরিষদ সচিবের সঙ্গে বৈঠক কারখানা খুলে দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ব্যবসায়ীদের আবেদন ◈ হকিতে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে কোয়ার্টারে ভারত ◈ টোকিও অলিম্পিক: সাঁতারে বিশ্ব রেকর্ড গড়ল চীন ◈ ঠিক সময়ে শুটিং শেষ না হলে পারিশ্রমিক দ্বিগুণ! ◈ মেরিলিন মনরোর বায়োপিক নিয়ে খারাপ খবর ◈ সিগারেট নয়, গাঁজায় ভবিষ্যৎ দেখছে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো

পর্ন ছবিতে ব্যবহার করা চশমা নিলামে তুলেছেন মিয়া খলিফা

প্রকাশিত : 08:43 AM, 17 August 2020 Monday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে ব্যবহারের জন্য পাওয়া সেই ‘কুখ্যাত’ চশমা নিলাম তুলেছে প্রাক্তন পর্নস্টার মিয়া খালিফা।

ভয়াবহ বিস্ফোরণে বিধ্বস্ত লেবাননের জন্য অর্থ সংগ্রহ করতেই নিজের চশমা নিলাম করেন।

মেশেব্যালের প্রতিবেদনে বলা হয়, স্পোর্টস ভাষ্যকার মিয়া খলিফা পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে তিন মাস ছিলেন। কিন্তু তার প্রভাব বহু বছর ধরে চলেছে। সম্প্রতি তিনি পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করা ছেড়ে দিয়েছেন।

লেবাননের বৈরুত তার জন্মস্থান। সেখানেই এক ভয়াবহ বিস্ফোরণ হয়। তাই আমেরিকার নাগরিকত্ব পাওয়া মিয়া খালিফা নিজের দেশের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য তার চশমা বিক্রি করে দেন।

মিয়া চশমাটি ই-বেয়তে নিলামে তুলেছেন। সেটির মূল্য এখন পর্যন্ত এক লাখ ডলার ওঠেছে। নিলাম চালু থাকবে শনিবার পর্যন্ত। এই নিলাম থেকে যে অর্থ উঠবে তার পুরোটাই লেবাননের রেড ক্রসের হাতে তুলে দেবেন তিনি।

মিয়া খালিফা লিখেছিলেন, ‘আসুন আমরা লেবাননের জনগণের জন্য অর্থ সংগ্রহ করি, এবং আমি তা শুরু করেছি।’

প্রায় ১১টি পর্নোগ্রাফিতে দেখা গিয়েছিল মিয়া খলিফাকে। যার মধ্যে হিজাব পরে একটি পর্নো ছবি ঝড় তুলে। ভিডিওটি প্রকাশ্যে আসার পর মিয়াকে প্রাণনাশের হুমকি দেয় কট্টরপন্থীরা। এরপর লেবাননে প্রবেশাধিকার হারান তিনি।

মিয়া জানিয়ে ছিলেন, পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করে তিনি অনুতপ্ত ছিলেন। তার পরিবারও সেই সময় তাকে সাহায্য করেনি। তিনি এখন সেই ইন্ডাস্ট্রি থেকে ফিরে এসেছেন।

গত ৪ আগস্ট লেবাননের বৈরুত বন্দরের একটি গুদামে ভয়াবহ বিস্ফোরণ হয়। এতে অন্তত ২২০ জন নিহত হন। আহত হন ছয় হাজারের বেশি মানুষ।

বলা হচ্ছে, ওই গুদামে দুই হাজার ৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুদ ছিল, যা সার ও বোমা তৈরির কাজে ব্যবহৃত হয়।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT