ঢাকা, সোমবার ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১২ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

দুদকের মামলা : বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র কামালের সাত বছর কারাদন্ড

প্রকাশিত : 09:47 PM, 9 November 2020 Monday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা অর্থ আত্মসাতের মামলায় বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) সাবেক মেয়র ও বিএনপি নেতা আহসান হাবিব কামালসহ পাঁচজন আসামির প্রত্যেককে সাত বছর করে কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত।

পাশাপাশি এক নম্বর আসামি সাবেক মেয়র আহসান হাবিব কামাল ও পাঁচ নম্বর আসামি বরিশাল নগরীর কালীবাড়ি রোডের বাসিন্দা জাকির হোসেনকে এক কোটি টাকা করে অর্থদন্ড করা হয়েছে। সোমবার শেষ কার্যদিবসে বরিশাল বিভাগীয় বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মহসিনুল হক দন্ডপ্রাপ্ত সকল আসামিদের উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

ওইদিন সন্ধ্যায় দন্ডপ্রাপ্তদের আদালত থেকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন আদালতের বেঞ্চ সহকারি হারুন-অর রশিদ। দন্ডপ্রাপ্ত অন্যান্যরা হলেন-সাবেক বরিশাল পৌরসভার (বর্তমান বরিশাল সিটি কর্পোরেশন) নির্বাহী প্রকৌশলী (বর্তমান অবসরপ্রাপ্ত) মোঃ ইসহাক, সাবেক সহকারী প্রকৌশলী (বর্তমান ঢাকা নগর ভবনের স্থানীয় সরকার বিভাগের আরবান পাবলিক অ্যান্ড এনভয়েরমেস্টাল হেলথ সেক্টর ডেভলপমেন্ট প্রজেক্টের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী) খান মুহাম্মদ নুরুল ইসলাম, সাবেক বরিশাল পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ আব্দুস ছাত্তার ও বরিশাল নগরীর কালীবাড়ি রোডের বাসিন্দা জাকির হোসেন।

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, দন্ডপ্রাপ্তরা ১৯৯৫ সালের ২১ ডিসেম্বর থেকে ১৯৯৬ সালের ৩ জুন তারিখের মধ্যে তৎকালীন পৌরসভা এলাকায় টেলিফোন শিল্প সংস্থা কর্তৃক ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তা মেরামত দেখিয়ে টেলিফোন শিল্প সংস্থার জাল প্যাড প্রস্তুত করে ভূয়া দরপত্র সৃষ্টি করে। পরবর্তীতে ভুয়া ঠিকাদার নিয়োগ করে প্রতারণা ও জালিয়াতির মাধ্যেমে বরিশাল ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড এ চলতি হিসাব খোলেন। ওই হিসাবে টেলিফোন শিল্প সংস্থা কর্তৃক প্রদত্ত চারটি চেকের মাধ্যমে মোট ৩৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা উত্তোলন করে ১১ লাখ ৯৯ হাজার ৩৭১ টাকার রাস্তার মেরামত কাজ দেখায় এবং পরস্পর একে অপরের সহযোগিতায় ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরকারি ২৭ লাখ ৬০ হাজার ৬৩৯ টাকা আত্মসাত করে।

যে ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশনের উপ-পরিচালক মোঃ আব্দুল বাছেত ২০০২ সালের ১১ অক্টোবর একটি মামলা দায়ের করেন। ২০১১ সালের ১৯ জুলাই দুর্নীতি দমন কমিশনের উপ-পরিচালক এবং পরিচালক এমএইচ রহমতউল্লাহ আদালতের চার্জশীট দাখিল করেন। আদালতের বিচারক ২০ জনের সাক্ষ্যগ্রহন শেষে উল্লেখিত রায় ঘোষনা করেন।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT