মঙ্গলবার ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

ডাচদের ৪৪ রানেই থামিয়ে দিল শ্রীলঙ্কা

প্রকাশিত : 09:43 AM, 23 October 2021 Saturday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

নিয়মরক্ষার ম্যাচে দুর্দান্ত বোলিং করে নেদারল্যান্ডসকে ৪৪ রানেই থামিয়ে দিল শ্রীলঙ্কা। বিশ্বকাপের এবারের আসরে এটিই ছিল কোনো দলের সর্বনিম্ন সংগ্রহ।

আগেই সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত করা শ্রীলঙ্কাকে জিততে হলে করতে হবে মাত্র ৪৫ রান।

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) আরব আমিরাতের শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক দাসুন শানাকা। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে চতুর্থ বলেই উইকেট হারান ম্যাক্স ও’ডাউড। রান আউট হয়ে ব্যক্তিগত ২ রান করে সাঝঘরে ফেরেন তিনি। এরপর বল করতে এসেই নিজের প্রথম ওভারে দুই উইকেট তুলে নেন থিকশানা। বেন কোপারকে ১০ রানে ফেরানোর পর ৫ রানে মাইবার্গকে ফেরান শ্রীলঙ্কান এই পেসার।

৩ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ে নেদারল্যান্ড। থিকশানার মতো নিজের প্রথম ওভারে জোড়া উইকেটের দেখা পান ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গাও। ব্যক্তিগত ১১ রানে কলিন অ্যাকারমানকে ফেরানোর পর শূণ্যরানে বাস ডি লিডকে এলবিডব্লিউ করে সাঝঘরে ফেরান লঙ্কান এই বোলার। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ডাচরা। রইলফ ভ্যান ডার মারের বিদায়ের পর ব্যক্তিগত ২ রান করে সাঝঘরে ফেরেন নেদারল্যান্ড অধিনায়ক পিটার সিলারও।

দশম ওভারের প্রথম বলেই অষ্টম উইকেটের পতন ঘটে নেদারল্যান্ডের। লাহিরু কুমারার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ব্যক্তিগত ৮ রানেই থামে স্কট এডওয়ার্ডসের ইনিংস। ১ বল পার না হতেই ব্র্যান্ডন গ্লোভারকে নিজের দ্বিতীয় শিকার বানান লাহিরু। শেষ বলে পল ভ্যান মিকারেনকে এলবিডব্লিউ করে দলীয় ৪৪ রানেই ডাচদের ইনিংস থামিয়ে দেন লঙ্কান এই পেসার।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT