বৃহস্পতিবার ২৬ মে ২০২২, ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

জার্মানিতে জুনের আগেই সবার করোনা টিকা নিশ্চিত করতে চাই

প্রকাশিত : 09:11 AM, 28 April 2021 Wednesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

চ্যান্সেলর ম্যার্কেল ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা করোনা টিকা প্রাপ্তদের জন্য ছাড় এবং সবার জন্য টিকা নেওয়ার সুযোগের বিষয়ে আলোচনা করেছেন। মে মাসেই এই দুটি বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। খবর ডয়চে ভেলের।

করোনা সংকট মোকাবিলায় জার্মানিতে ‘এমারজেন্সি ব্রেক’ সম্ভবত ধীরে হলেও সংক্রমণের হার কমাতে শুরু করেছে বলে মনে হচ্ছে। মঙ্গলবার দৈনিক সংক্রমণের হার ছিল প্রায় ১১ হাজার। তবে এই হার ধারাবাহিকভাবে না কমলে পরিস্থিতির উন্নতির দাবি করা যাবে না। রাতে কারফিউয়ের মতো পদক্ষেপের পাশাপাশি টিকাদান কর্মসূচিতে গতি আসায় করোনার প্রসার আরো কমার আশা করা হচ্ছে।

এমন প্রেক্ষাপটে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা ম্যার্কেল ও ১৬টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জুন মাসের মধ্যে দেশের সব প্রাপ্তবয়স্কের জন্য করোনা টিকা নেওয়ার সুযোগ দিতে ঐকমত্যে পৌঁছেছেন। সবকিছু ঠিকমতো চললে মে মাসের শেষেই সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হতে পারে। এই মুহূর্তে একে একে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ মানুষদের টিকা দেওয়া হচ্ছে। তবে ম্যার্কেল বলেন, বয়স অথবা অন্যান্য শর্ত তুলে নিলেও সঙ্গে সঙ্গে সব মানুষকে টিকা দেওয়া সম্ভব হবে না। কিন্তু সবাই টিকা নেওয়ার দিনক্ষণ স্থির করতে আবেদন জানাতে পারবেন। সরবরাহের ওপর নির্ভর করে তাদের টিকা নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হবে।

করোনার টিকার দুটি ডোজ পাওয়া মানুষদের জন্য ধীরে ধীরে কিছু বাধানিষেধ তুলে নেওয়ার দাবির প্রতিও সহানুভূতি দেখিয়েছেন ফেডারেল ও রাজ্য স্তরের শীর্ষ নেতারা। সেই সঙ্গে প্রায় ৩০ লাখ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েও সেরে উঠেছেন। তাদের শরীরে যথেষ্ট অ্যান্টিবডি রয়েছে বলে টিকাপ্রাপ্তদের মতো ছাড় দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। এই গোষ্ঠীকে দোকান-বাজারে অবাধ প্রবেশ থেকে শুরু করে কিছু পরিষেবার সুযোগ দেওয়া হবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েন্স স্পান জানিয়েছেন যে, মে মাসের শেষের মধ্যে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ফেডারেল সরকার আগামী সপ্তাহে খসড়া প্রস্তাবমালা প্রস্তুত করার পর ২৮ মে সংসদের উচ্চ কক্ষ চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে। করোনা টিকাপ্রাপ্তদের প্রমাণপত্র হিসেবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন স্তরে একটি অ্যাপ তৈরির উদ্যোগের পাশাপাশি জার্মানিতেও নতুন সার্টিফিকেট তৈরির কাজ করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। উল্লেখ্য, এখনো পর্যন্ত মাত্র ২৩ শতাংশ মানুষ টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছেন। ৭ শতাংশের মতো মানুষ দ্বিতীয় ডোজ পেয়ে নির্ধারিত প্রতিরোধ শক্তির অধিকারী হয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে অন্য অনেক দেশের মতো জার্মানিতে জোরালো তর্কবিতর্ক চলছে। সমালোচকদের মতে, করোনা টিকাকে কেন্দ্র করে এমন ‘বৈষম্য’ মোটেই ন্যায্য নয়। যেসব মানুষ এখনো টিকার জন্য অপেক্ষা করছেন, তাদের প্রতি ‘অন্যায়ের’ প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তারা।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT