ঢাকা, মঙ্গলবার ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ১৩ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

ঘন কুয়াশায় ঢাকা সারাদেশ, যান চলাচলে বিঘ্ন

প্রকাশিত : 11:19 AM, 8 December 2020 Tuesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

শীত জেঁকে না বসলেও ঘন কুয়াশায় ঢেকে আছে সারাদেশ। ফলে বিভিন্ন রুটের নৌযান চলাচলে প্রচণ্ড বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। বেড়েছে ব্যাপক ভোগান্তি। যাত্রীরা ঘণ্টার পর ঘণ্টা পারাপারের অপেক্ষায় আটকে আছেন। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, উত্তরের দেশগুলো বিশেষ করে নেপাল, ভুটান এবং ভারতের উত্তর প্রদেশ এলাকা থেকে ঘন কুয়াশা দেশে প্রবেশ করছে। ফলে দিনের বেলায় সূর্যের আলো পৌঁছাতে পারছে না। অপরদিকে বাতাসে জলীয় কণার পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় শীতও বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। তবে চলতি সপ্তাহের শেষের দিকেই শীত বাড়ারও আভাস রয়েছে।

তারা জানান, পর পর দু’সপ্তাহে সাগরে দুটি ঘূর্ণিঝড়ের সৃষ্টি হয়। ঘূর্র্ণিঝড় দুটি সুদূর তামিলনাড়ু এবং শ্রীলঙ্কার উপকূলে আঘাত হানলেও বাতাসে এর প্রভাব রয়ে গেছে। সাগরের আবহাওয়ায় তারতম্য ঘটলেই এই উপমহাদেশের আবহাওয়ার উপর বেশ প্রভাব পড়ে। বয়ে যাওয়া দুটি ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষেত্রে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এর কারণে বাতাসে প্রচুর পরিমাণ জলীয় বাষ্প এখনও রয়ে গেছে। এই বাষ্পের কারণে আকাশে মেঘের সৃষ্টি হচ্ছে। অপরদিকে সুদূর উত্তরের দেশগুলো থেকে প্রবেশ করছে ঘন কুয়াশা। দুইয়ে মিলে শীতে এই আবহাওয়ায় এক ভারসাম্যহীন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। বাস্তবে শীত ঋতু আসেনি। তবে প্রকৃতি এখন শীত ঋতুর একেবারে দ্বারপ্রান্তে। আর কদিন পরেই শুরু হবে পৌষ মাস। কিন্তু নিয়মানুযায়ী পৌষ আসার আগেই এখানে জাঁকিয়ে শীত পড়ে। এরপর শীতকালজুড়ে থাকে একাধিক শৈত্যপ্রবাহ। ফলে শীতে কাঁপতে থাকে সারাদেশ। কিন্তু এবারের শীতের ধরন ও বৈশিষ্ট্য যেন বোঝা যায়। শীতবস্ত্রের প্রয়োজনই হচ্ছে না। অথচ ডিসেম্বরের ৭ তারিখ পেরিয়ে আজ ৮ তারিখ। ১৫ তারিখেই পৌষ এসে যাবে। তবে এখনও শীত না এলেও আশার বাণী ঠিকই আছে। আগামী ১১ থেকে ১৩ তারিখে তাপমাত্রা আরও কমে যেতে পারে। সেই সময় ঠাণ্ডার অনুভূতি বাড়তে পারে। এদিকে ঘন কুয়াশার কারণে সারাদেশে নৌযান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। ভোগান্তিতে পড়েছেন পারাপারের অপেক্ষায় থাকা হাজার হাজার যাত্রী। আমাদের স্টাফ রিপোর্টার ও সংবাদদাতার পাঠানো

রাজবাড়ী ॥ ঘন কুয়াশার কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে ১০ ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ থাকার পর পুনরায় এ পথে সকাল ১০টা থেকে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। দৌলতদিয়া বিআইডব্লিউটিসির ব্যবস্থাপক আবু আব্দুল্লাহ জানান, গত রাত ১২টা থেকে পদ্মা নদী অববাহিকায় ঘন কুয়াশায় কোন কিছু দৃশ্যমান না হওয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়।

মানিকগঞ্জ ॥ পদ্মায় ঘন কুয়াশার কারণে রবিবার মধ্যরাত সাড়ে ১২টা থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সাড়ে ৯ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে কুয়াশা কেটে গেলে ফেরি চলাচল শুরু হয়। দীর্ঘ সময় ফেরি বন্ধ থাকায় ঘাট এলাকায় যানবাহনের দীর্ঘ লাইনের সৃষ্টি হয়েছে।

মুন্সীগঞ্জ ॥ মাওয়া প্রান্তের শিমুলিয়া ঘাট থেকে শুরু হওয়া নৌরুট ফরিদপুরের বাংলাবাজার ঘাট পর্যন্ত নৌযান চলাচল ঘন কলংয়াশার কারণে ৮ ঘণ্টা বন্ধ ছিল। কুয়াশা কেটে গেলে সোমবার সকাল ১০টায় শিমুলিয়া ঘাট থেকে বাংলাবাজার ঘাটের উদ্দেশ দিনের প্রথম ফেরি ‘কাকলি’ ছেড়ে যায়। তার আগে ৭ ডিসেম্বর ভোররাত দেড়টা থেকে নৌরুটটিতে সকল ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ ছিল।

রাজশাহী ॥ হঠাৎ করেই ঘন কুয়াশার চাদরে আচ্ছন্ন হয়ে পড়েছে উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকাসহ পদ্মাপাড়ের নগর রাজশাহী। কদিন ধরেই রাতে ও দিনে ঘন কুয়াশায় তেজ কমেছে সূর্যের। দিনভর কুয়াশার কারণে কিরণ ছড়াতে পারছে না সূর্য। শীতের প্রকোপ না থাকলেও ঘন কুয়াশা জানান দিয়েছে তীব্র শীতের পদধ্বনি। সোমবারেও দিনভর রাজশাহীর প্রকৃতি ছিল কুয়াশায় ঢাকা।

সবুজ বৃক্ষরাজিও ধোঁয়াচ্ছন্নরূপ ধারণ করেছে। শহরের পিচঢালা সড়কগুলোও ভিজেছে শেষ অগ্রহায়ণের ঘন শুভ্র সফেদ শিশিরবিন্দুতে।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT