ঢাকা, মঙ্গলবার ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

কোন ভাবেই থামছেই না ধর্ষণের ঘটনা

প্রকাশিত : 11:24 AM, 3 November 2020 Tuesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

থামছেই না ধর্ষণের ঘটনা। সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের বিভিন্ন স্থানে আরও কয়েকটি ধর্ষরে ঘটনা ঘটেছে। যার মধ্যে খুলনায় ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ১২ বছরের মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে বগুড়ায় ভুয়া নাম দিয়ে মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ার পর ফুসলিয়ে ডেকে নিয়ে ৮ম শ্রেণীতে পড়া মাদ্রাসা ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করা হয়েছে। এছাড়া বাগেরহাটে ধর্ষণের অভিযোগে সৎ বাবাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এদিকে জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলায় তেরো বছর বয়সের ষষ্ঠ শ্রেণীর এক কিশোরীকে জোরপূর্বক বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে মিজান নামের এক বখাটে যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়া বোয়ালমারীতে বাকপ্রতিবন্ধী এক কিশোরী (১৬) ধর্ষণ চেষ্টার শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আবার গত ৯ আগস্ট গাজীপুরে ৫ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর গলা টিপে হত্যা করে লাশ বালুর নিচে পুঁতে রাখে ধর্ষকরা। এ ঘটনায় জড়িত থাকায় দুই কিশোরকে সোমবার গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

খুলনা ॥ খুলনায় ঘুমের ওষুধ খাইয়ে ১২ বছরের এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে এক হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে রবিবার বটিয়াঘাটা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ওই ছাত্রীকে সোমবার খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (কেএমসি) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্ত হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক সঞ্জয় শীল (৫২) পলাতক বলে পুলিশ জানিয়েছে। বটিয়াঘটা থানা পুলিশ জানায়, ওই মাদ্রাসা ছাত্রীর মা বটিয়াঘাটা থানায় স্থানীয় হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক সঞ্জয় শীলের বিরুদ্ধে মাদ্রাসায় পড়ুয়া তার শিশুকন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছেন। বাদী বটিয়াঘাটা উপজেলার শুকদাড়া গ্রামের মাদ্রাসা ছাত্রীর মা। তিনি বিভিন্ন বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করেন। পাশর্^বর্তী গঙ্গারামপুর গ্রামের মৃত বিনোদ শীলের ছেলে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক সঞ্জয় শীলের কাছে মাঝেমধ্যে তিনি ও তার মেয়ে চিকিৎসা নিতে যেতেন। চিকিৎসকও মাঝেমধ্যে চিকিৎসা দিতে ছাত্রীর বাড়িতে আসতেন। শনিবার বিকেলে অভিযুক্ত চিকিৎসক ওই ছাত্রীর বাড়িতে আসেন। তখন তার মা বাড়িতে ছিলেন না। এ সময় চিকিৎসক ঘরে ঢুকে ছাত্রীর শারীরিক খোঁজখবর নিয়ে তাকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে দেন। এ সময় ছাত্রীটি অচেতন হয়ে পড়লে চিকিৎসক তাকে ধর্ষণ করেন। কিছু সময় পর ছাত্রীটির জ্ঞান ফিরে এলে তার চিৎকারে লোকজন চলে আসায় চিকিৎসক সঞ্জয় শীল দৌড়ে পালিয়ে যান। এ ব্যাপারে বটিয়াঘাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) উজ্জ্বল কুমার দত্ত বলেন, অভিযুক্ত চিকিৎসক সঞ্জয় শীল পলাতক। তাকে গ্রেফতারের জন্য চেষ্টা চলছে।

বগুড়া ॥ এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ফুসলিয়ে নিয়ে ধর্ষণ করায় আমিনুর ইসলাম (২৭) নামে এক ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার এ ব্যপারে বগুড়া সদর থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। ভুয়া নাম দিয়ে মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ার পর ফুসলিয়ে ডেকে নিয়ে ৮ম শ্রেণীতে পড়া ওই মাদ্রাসা ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করা হয়। পুলিশ জানায়, বগুড়া সদরের এরুলিয়া ইউনিয়নের কাহলা সাকিদার পাড়ার আলতাফ হোসেনের ছেলে অটোরিক্সা চালক বিবাহিত আমিনুর। সাগর নাম দিয়ে পাশের নুনগোলা ইউনিয়নের এক মাদ্রাসা ছাত্রীর সঙ্গে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে। ফোনে সে মেয়েটিকে নানাভাবে প্রলোভিত করে। পুলিশ আর জানায়, ২৪ অক্টোবর থেকে ৮ম শ্রেণীর ওই ছাত্রীর সঙ্গে অটোরিক্সা চালক আমিনুরের মোবাইল ফোনে কথা শুরু হয়। এরপর সে ফুসলিয়ে সম্পর্ক গড়ে। ২৮ অক্টোবর রাতে সে মেয়েটির সঙ্গে দেখা করার জন্য মোবাইল ফোনে ফুসলিয়ে ডেকে নিয়ে অটোরিক্সায় তোলে। পরে নিকটবর্তী একটি বাঁশঝাড় এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর বিষয়টি প্রকাশ না করার জন্য ধর্ষক আমিনুর মেয়েটিকে ভয়ভীতি দেখায়। এদিকে মেয়েটির পরিবারের সদস্যরা খোঁজাখুঁজির পর এক পর্যায়ে তাকে খুঁজে পায়। মেয়েটি পরিবারের নিকট ঘটনা খুলে বলে। ধর্ষণের শিকার মাদ্রাসা ছাত্রী ও তার পরিবার বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। ধর্ষকের সন্ধানে তার পরিবার খোঁজ নিয়ে সাগর নামে কাউকে না পেয়ে রবিবার বগুড়া সদর থানায় বিষয়টি জানায়। পুলিশ তদন্ত শুরু করে জানতে পারে, ধর্ষকের নাম সাগর আর মোবাইল নম্বর ছাড়া কোন কিছু জানে না মেয়েটি। আর মোবাইল নম্বরটিও সাগর নামে কারও নয়। পরে পুলিশ কৌশলে নাম-পরিচয় উদঘাটন করে রবিবার রাতে ধর্ষক আমিনুরকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে। পুলিশ জানায়, সোমবার ধর্ষণের শিকার মেয়েটির পিতা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

বাগেরহাট ॥ ধর্ষণের অভিযোগে সৎ বাবা ইবাদত শেখকে (৩২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার নির্যাতিত মেয়েটির মা বাদী হয়ে মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে বাগেরহাট সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর সদর উপজেলার ভট্টপ্রতাপ এলাকা থেকে অভিযুক্ত ইবাদত শেখকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে ওসি কেএম আজিজুল ইসলাম জানিয়েছেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, শনিবার বিকেলে নির্যাতিত মেয়েটিকে বাড়িতে রেখে তার মা ছোট দুই সন্তানকে নিয়ে চশমা ঠিক করার জন্য ফকিরহাটে যান।

জামালপুর ॥ বকশীগঞ্জ উপজেলায় তেরো বছর বয়সের ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী এক কিশোরীকে জোরপূর্বক বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে মিজান (২৫) নামের এক বখাটে যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার মধ্যরাতে বকশীগঞ্জ পৌরসভার মেষেরচর বড়ইতাড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। একই গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে গ্রেফতার মিজানকে সোমবার সকালে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। মামলা সূত্রে জানা গেছে, বকশীগঞ্জ পৌরসভার মেষেরচর বড়ইতাড়ি গ্রামের ওই কিশোরী রবিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘরের বাইরে ল্যাট্রিনে যাচ্ছিল। এ সময় প্রতিবেশী বখাটে যুবক মিজান ওই কিশোরীর মুখ চেপে ধরে তাদের রান্না ঘরের পেছনে নিয়ে বিবস্ত্র করে ধর্ষণের চেষ্টা করে। কিশোরীর চিৎকারে স্বজনরা তাকে সেখান থেকে উদ্ধার করতে পারলেও ওই যুবক পালিয়ে যায়। মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে তার বাবার দায়ের করা মামলার ভিত্তিতে ঘটনার রাতেই অভিযান চালিয়ে মিজানকে গ্রেফতার করেছে বকশীগঞ্জ থানা পুলিশ। বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ শফিকুল ইসলাম জনকণ্ঠকে জানান, সোমবার আদালতে জবানবন্দী গ্রহণের জন্য ওই কিশোরীকে জামালপুরের মুখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতে পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে গ্রেফতার মিজানকেও ওই আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

ফরিদপুর ॥ বোয়ালমারীতে বাকপ্রতিবন্ধী এক কিশোরী (১৬) ধর্ষণ চেষ্টার শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। রবিবার রাত ১১টার দিকে উপজেলার সাতৈর ইউনিয়নের জয়নগর এলাকায় স্থানীয় ব্যবসায়ী মোঃ হিরু মুন্সির মালিকানাধীন করাতকলে এ ঘটনা ঘটে।

গাজীপুর ॥ ৫ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর গলা টিপে হত্যা করে লাশ বালুর নিচে পুঁতে রাখে ধর্ষকরা। এ ঘটনায় জড়িত থাকায় দুই কিশোরকে সোমবার গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। গ্রেফতারকৃতরা হলো-যশোরের ঝিকরগাছা থানার কুন্দিপুর রঘুনাথপুর এলাকার মোঃ আব্দুল করিমের ছেলে মোঃ রাসেল ওরফে রাহুল (১৪) এবং গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের কাশিমপুর থানার বাগবাড়ি এলাকার নছিব সিকদার ওরফে নছুনের ছেলে সবুজ (১৪)। গাজীপুর পিবিআই’র পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাকছুদের রহমান জানান, গাজীপুর মহানগরের কাশিমপুর থানার বাগবাড়ি এলাকার মনোয়ারের বাড়িতে সপরিবারে ভাড়া থাকেন রফিকুল ইসলাম। তার গ্রামের বাড়ি নাটোরের সিংড়া থানার থলকুড়ি এলাকায়। রফিকুল ইসলাম ও তার স্ত্রী স্থানীয় পোশাক কারখানায় চাকরি করেন। গত ৯ আগস্ট সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রফিকুল ইসলামের ৫বছরের শিশু মেয়ে রিয়া মনিকে চকোলেটের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতিবেশী ভাড়াটিয়ার কিশোর ছেলে রাসেল ও তার বন্ধু সবুজ ঘরে ডেকে নেয়। সেখানে তারা জোরপূর্বক শিশুটিকে পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করে। শিশুটি ধর্ষণের কথা প্রকাশ করার কথা বললে তাকে গলা টিপে হত্যা করে ধর্ষক কিশোররা। পরে শিশুটির লাশ পার্শ্ববর্তী কফিল উদ্দিন ওরফে কালামের নির্মাণাধীন পরিত্যক্ত বিল্ডিংয়ের বালুর নিচে চাপা দিয়ে রাখে। তিনি জানান, এ ঘটনার প্রায় পৌনে তিন মাস পর গত ২৯ অক্টোবর সন্ধ্যায় বালুর নিচ থেকে অজ্ঞাত ৫বছরের এক শিশুর মাথার খুলি, বড়-ছোট চোয়ালের হাড়সহ ১৯টি হাড়, চুল ও চামড়াসহ একটি হাফপ্যান্ট উদ্ধার করে জিএমপি’র কাশিমপুর থানা পুলিশ। স্থানীয়ভাবে অজ্ঞাতনামা শিশুকে শনাক্ত করার চেষ্টা করা হলেও তার পরিচয় উদঘাটিত হয়নি। এ ঘটনায় পরদিন পুলিশ বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

মুন্সীগঞ্জ ॥ লৌহজংয়ে ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ুয়া ১৩ বছরের স্কুলছাত্রীকে মুখ চেপে ধর্ষণ করা হয়েছে। উপজেলার গাঁওদিয়া ইউনিয়নের মুদি দোকানদার দুলাল মৃধা (২৬) স্কুলছাত্রীকে দুইদিন ধর্ষণ করে এমন অভিযোগে রবিবার লৌহজং থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরে ধর্ষকের পরিবার থেকে সোমবার মামলা তুলে না নিলে হত্যার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে স্কুলছাত্রীর পরিবার।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT