ঢাকা, মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর

প্রকাশিত : 08:50 PM, 6 December 2020 Sunday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

কুষ্টিয়া পৌরসভার পাঁচ রাস্তার মোড়ে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যের ডান হাত, পুরো মুখ ও বাম হাতের অংশ বিশেষ শুক্রবার রাতের কোনো এক সময় ভেঙে ফেলা হয়।
শনিবার সকালে তা নজরে আসার পর ক্ষোভ জানিয়ে শহরের বঙ্গবন্ধু সুপার মার্কেট চত্বর ও থানা মোড়ে আওয়ামী লীগ জাসদসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন বিক্ষোভ সমাবেশ, মিছিল ও মানববন্ধন করেছে। কারা এই ভাস্কর্য ভাংচুরে যুক্ত ছিল, তা জানা যায়নি। কুষ্টিয়া পৌরসভা কর্তৃপক্ষ শহরের ওই স্থানে বঙ্গবন্ধুর তিনটি ভাস্কর্য নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। একই বেদিদে জাতীয় চার নেতার ভাস্কর্যও থাকবে। কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম বলেন, “এর মধ্যে বঙ্গবন্ধুর একটি ভাস্কর্য স্থাপনের কাজ প্রায় শেষের দিকে। হঠাৎ করে রাতে দুর্বৃত্তরা এই ভাষ্কর্যটির ডান হাত, পুরো মুখ মণ্ডল ও বাঁ হাতের অংশ বিশেষ ভেঙে ফেলেছে।” কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভির আরাফাত বলেন, “সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করা হয়েছে। শিগগিরই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।” কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন বলেন, “বিজয় মাসে জাতির পিতা ও স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভেঙে ফেলার বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। যারাই এই ভাস্কর্য ভাংচুরের সাথে জড়িত থাক তাদের চিহ্নিত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” ভাস্কর্য ভাঙার প্রতিবাদে শনিবার শহরের এনএস রোডে মানববন্ধন করেছে জাসদ। সেখানে কুষ্টিয়া জেলা জাসদের সভাপতি হাজি গোলাম মহসিন বলেন, “শুক্রবার বিভিন্ন মসজিদের জুম্মার খুৎবা পাঠকালে সারাদেশের ভাস্কর্য অপসারণের যুক্তি দিয়ে মসজিদে আগত ধর্মপ্রাণ মুসুল্লিদের উস্কে দেয়ার অভিযোগ পেয়েছি।”
বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ:
মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষোভ: কুষ্টিয়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভাঙচুরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান।
শনিবার (৫ ডিসেম্বর) সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বিবৃতিতে তারা বলেন, ভাস্কর্য ভাঙচুর কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়, দেশে চলমান ভাস্কর্য বিরোধী চক্রান্তেরই অংশ। এই ঘটনাকে হালকাভাবে দেখার কোনো অবকাশ নেই। অবিলম্বে এই ন্যাক্কারজনক ঘটনায় জড়িত ও ইন্ধনদাতাদের আইনের আওতায় আনতে হবে। নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, মুজিব বর্ষের এই মুহূর্তে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুর স্বাধীন বাংলাদেশের অস্তিত্বে আঘাতের শামিল। এই অপরাধের সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত করতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা দেশব্যাপী সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।
আওয়ামী ওলামালীগের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ: সারাদেশে মূর্তি ও ভাস্কর্য নিয়ে হেফাজতের নেতাকর্মীরা দেশের মানুষকে উস্কে দেওয়ার অপতৎপরতায় যখন লিপ্ত। ঠিক সেই সময়ে কুষ্টিয়ায় জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। বিএনপি,জামায়াত, হেফাজত, মৌলবাদীশক্তি সংঘবদ্ধ হয়ে দেশে অপতৎপরতার লক্ষ্যেই এই ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের আলেম-উলামারা এ ঘটনাটির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আমরা দোষীদের তদন্তপূর্বক আটক করে কঠোর শাস্তির দাবী জানাচ্ছি।
আওয়ামী ওলামা লীগের কেন্দ্রিয় সভাপতি হাফেজ মাওলানা সুলাইমান এক বিবৃতিতে এ নিন্দা ও দাবী জানিয়েছেন। অপরদিকে আওয়ামী ওলামা লীগের কুষ্টিয়া নেতৃবৃন্দও এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
নেতৃবৃন্দ বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভেঙে হেফাজতিরা সাধারণ মানুষকে উস্কে দিচ্ছে। তারা মৌলবাদী শক্তিকে মাঠে নামিয়ে দেশেকে অস্থিতিশীল করতে চায়। আমরা দেশকে কস্মিনকালেও অস্থিতিশীল করতে দিবোনা। দেশের জন্য প্রয়োজনে আমরা ৭১,র মতো রক্ত দিবো, জীবন দিবো, তবুও জাতিরজনকের অপমান সহ্য করবোনা।
আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। সেই সাথে হেফাজতসহ জামায়াত-শিবিরের অপতৎপরতা যাতে বন্ধ হয় সে ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারসহ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করছি ।
কুষ্টিয়া পৌরসভা এমপ্লয়েজ ইউনিয়নের প্রতিবাদ
কুষ্টিয়া শহরের পাঁচ রাস্তার মোড়ে. কুষ্টিয়া পৌরসভার অর্থায়নে নির্মাণাধীন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য কে বা কারা রাতে অন্ধকারে ভেঙ্গে ফেলায় তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়ে বার্তা প্রেরণ করেছেন কুষ্টিয়া পৌরসভা এমপ্লয়েজ ইউনিয়নের সভাপতি গোলাম ছারয়ার এবং সাধারণ সম্পাদক আমান উল্লাহ। প্রেরিত বার্তায় তারা বলেন, জাতির পিতাকে অসম্মান করা মানে বাঙালি জাতি তথা বাংলাদেশকে অসম্মান করা। এ ধরনের অপরাধ কোন ভাবেই মেনে নেয়া যায় না। তারা অবিলম্বে এ অপকর্মের সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে বিচারের সম্মুখিন করার জন্য জোর দাবি জানান।
বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ : কুষ্টিয়ায় জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্মাণাধীন ভাস্কর্য ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনাটির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ এবং দোষীদের তদন্তপূর্বক আটক করে শাস্তির দাবী জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদের কেন্দ্রিয় সভাপতি মুফতি মো: শহিদউল্লাহসহ কেন্দ্রিয় নেতৃবৃন্দ। অপরদিকে বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা নেতৃবৃন্দ এক বিবৃতিতে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদের কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি মাওলানা ফারুক আযম জিহাদী স্বাক্ষরিত এক প্রতিবাদলিপিতে তারা এ দাবী করেন। এ ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা সভাপতি মাওলানা ফারুক আযম জিহাদী, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা খালিদ হোসাইন সিপাহী, যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা হাফিজুর রহমান, সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব হাফেজ আব্দুল্লাহ আল-মামুন, মাওলানা মিরাজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ইউনুছ আলী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মাওলানা ফারুক সিদ্দিকী, সমাজকল্যাণ সম্পাদক হাফেজ আব্দুল কুদ্দুস, ত্রাণ, সদস্য হাসিবুল ইসলাম, আবু নাঈমসহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ। বঙ্গবন্ধু উলামা পরিষদের নেতৃবৃন্দ বলেন, সারা দেশে মূর্তি ও ভাস্কর্য নিয়ে যখন সারাদেশ উত্তাল। ঠিক এই সময়ে একটি কুচক্রী ষড়যন্ত্রকারী মহল জাতিরজনক বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে সাধারণ মানুষকে উস্কে দেওয়ার ঘটনা ঘটিয়েছে। তারা মৌলবাদী শক্তিকে উস্কে দিয়ে মানুষকে মাঠে নামিয়ে দেশেকে অস্থিতিশীল করতে চায়। আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের আলেম-উলামারা আমাদের একবিন্দু রক্ত থাকতে এদেশকে অস্থিতিশীল করতে দিবোনা। আমরা জীবন দিয়ে হলেও মৌলবাদীশক্তিকে খতম করবো। এ ব্যাপারে আমরা প্রশাসনের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষন করছি। অনতিবিলম্বে দোষীদের আটক করে কঠোর শাস্তির দাবী করছি। এ ঘটনার পেছনে যারা মদদ দিচ্ছে তাদেরকেও খুঁজে বের করে কঠিন শাস্তির দাবী করছি।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT