ঢাকা, শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১, ৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

কুমারগাঁও বিদ্যুত উপকেন্দ্রে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড

প্রকাশিত : 01:52 PM, 18 November 2020 Wednesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

সিলেট কুমারগাঁও বিদ্যুত উপকেন্দ্রে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার বেলা ১১টা ২ মিনিটে স্থানীয় বিদ্যুত বিতরণকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) একটি ট্রান্সফরমারে আগুন লেগে যায়। এরপর উপকেন্দ্রের মধ্যে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানির (পিজিসিবি) একটি ট্রান্সফরমারে আগুন ছড়িয়ে পড়লে সিলেট অঞ্চলের বেশিরভাগ এলাকা বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সিলেট শহরের বিদ্যুত বিতরণ স্বাভাবিক হওয়ার কোন খবর পাওয়া যায়নি। তবে দুপুর একটা ১০ মিনিটে বিয়ানীবাজার, বিকেল ৪টা ৫৬ মিনিটে ছাতক এবং ৫টা ১৪ মিনিটে বিকল্প উপায়ে সুনামগঞ্জে বিদ্যুত সরবরাহ শুরু করা হয়েছে। তবে কুমারগাঁও এলাকার সাবস্টেশনটি এই সময়েও চালু করা সম্ভব না হওয়াতে সিলেট শহরে বিদ্যুত বিতরণ শুরু করা সম্ভব হয়নি। পিডিবির একজন কর্মকর্তা জানান, মধ্যরাতের দিকে সিলেটে বিদ্যুত সরবরাহ শুরু করা হতে পারে।

পিজিসিবির ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইয়াকুব ইলাহী চৌধুরী জানান, সকাল ১১টা ২ মিনিটে ৩৩/১১ কেভি বিদ্যুত সরবরাহ ট্রান্সফরমারে আগুন লেগে যায়। এই ট্রান্সফরমারটি দিয়ে বিদ্যুত উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) উপকেন্দ্রে বিদ্যুত সরবরাহ করে থাকে। সেখান থেকে আমাদের উপকেন্দ্রের ১৩২/৩৩ কেভি একটি ট্রান্সফরমারে আগুন লেগে যায়। বড় দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ওই উপকেন্দ্রের চারটি ট্রন্সফরমারে বিদ্যুত সঞ্চালন বন্ধ করে দেয়া হয়। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্তে প্রধান প্রকৌশলী ইকবাল আজমের নেতৃত্বে চার সদস্যর একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ঘটনা তদন্তে পিডিবির সদস্য (উৎপাদন) জাকির হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। পিডিবির নয় পিজিসিবির ট্রান্সফরমারে আগে আগুন লেগেছে বলে পিডিবির তরফ থেকে জানানো হয়েছে। সিলেটের বিদ্যুত পরিস্থতি স্বাভাবিক করতে পিডিবির সদস্য উৎপাদন এবং বিতরণ ঘটনার পর সিলেটে গেছেন।

পিজিসিবি সূত্র বলছে, কুমারগাঁও উপকেন্দ্র থেকে ছাতক, সুনামগঞ্জ এবং বিয়ানীবাজার উপকেন্দ্রে বিদ্যুত সরবরাহ করা হয়। সঙ্গত কারণে কুমারগাঁও বন্ধ করে দেয়াতে ছাতক, সুনামগঞ্জ এবং বিয়ানীবাজার এলাকার সাবস্টেশনগুলোতে বিদ্যুত সরবরাহ বন্ধ করে দেয়া হয়।

কুমারগাঁও উপকেন্দ্রে স্থানীয় বিদ্যুত বিতরণ কোম্পানি পিডিবির একটি ৩৩/১১ কেভি ট্রান্সফরমার রয়েছে। এর পাশে পিজিসিবির চারটি ১৩২/৩৩ কেভি একটি ট্রান্সফরমার রয়েছে। এরমধ্যে পিডিবির ৩৩/১১ কেভির একটি এবং পিজিসিবির ১৩২/৩৩ কেভির একটি ট্রান্সফরমার পুড়ে গেছে। তবে সেখানে ১৩২/৩৩ কেভির পিজিসিবির বাকি তিনটি ভাল আছে বলে আপাত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে। এখন উপকেন্দ্রের অন্য তিনটি ট্রান্সফরমার পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। তবে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটা নাগাদ এসব ট্রান্সফরমার চালু হয়নি বলে পিজিসিবি জানিয়েছে।

অগ্নিকাণ্ডের পর সিলেট জেলার বিদ্যুত সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। এদিকে আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে ফায়ার সার্ভিসের জয়ন্ত কুমার নামের এক সদস্য আহত হন। তাকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সিলেট ফায়ার সার্ভিসের উপ পরিচালক শওকত আলী জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য ফায়ার সার্ভিসের ৫টি টিম ঘটনাস্থলে আসে। প্রায় ৪৫ মিনিট চেষ্টা চালিয়ে বিদ্যুত কেন্দ্রর দুটি স্থানে আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। বিদ্যুত কেন্দ্রে মেশিনের ভেতরে থাকা তেল থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

বিদ্যুত সরবরাহ বন্ধ থাকায় মারাত্মক দুর্ভোগে পড়েছেন নগরবাসী। কখন বিদ্যুত ব্যবস্থা স্বাভাবিক হবে এ বিষয়ে নিশ্চয়তা না থাকায় জনমনে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে। ইতোমধ্যে পানি সঙ্কট সৃষ্টি হয়ে গেছে। রাতের অন্ধকার মোকাবেলা করতে মোমবাতি কিনে নিচ্ছেন নগরীর বাসিন্দারা। সন্ধ্যার পূর্বেই নগরীর বিভিন্ন মার্কেটের দোনপাট বন্ধ হয়ে গেছে। বিদ্যুত সরবরাহ কখন শুরু হবে তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। ফলে পিডিবি ও পল্লী বিদ্যুতের পক্ষ থেকে বিদ্যুতহীনতার কারণটি জনগণকে জানাতে শহরে মাইকিং করা হচ্ছে।

বিদ্যুত উন্নয়ন ও বিতরণ বিভাগের সিলেট কার্যালয়ের প্রধান প্রকৌশলী মোকাম্মেল হোসেন বলেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও বিদ্যুত সরবরাহ স্বাভাবিক করতে অনেক সময় লাগবে। আগুনে গ্রিড লাইন ও ট্রান্সমিটার অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বেশকিছু যন্ত্রপাতি পুড়ে গেছে। পিডিবি ও পিজিসিবি একসঙ্গে এগুলো সংস্কারে কাজ করছে। ক্ষতিগ্রস্ত যন্ত্রপাতি সংস্কার ও পরিবর্তন করতে হবে। তবে কতক্ষণের মধ্যে বিদ্যুত সরবরাহ স্বাভাবিক হতে পারে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি তিনি। সিলেটের কুমারগাঁও বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্রে গ্রিড লাইনে অগ্নিকাণ্ডে পুরো সিলেটের বিদ্যুত সরবরাহ বিচ্ছিন্ন হয়েছে। মোকাম্মেল হোসেন বলেন, ইতোমধ্যে দুটি ট্রান্সফরমার পুড়ে গেছে। এ অবস্থায় পুরো সিলেটে বিদ্যুত সরহরাহ বন্ধ রয়েছে।

এদিকে সাম্প্রতিক সময়ে উপকেন্দ্রে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা বেড়েছে চলতি বছরের ৮ সেপ্টেম্বর ময়মনসিংহ মহানগরীর কেওয়াটখালীতে আগুনে পিজিসিবির উপকেন্দ্রের আগুনে ট্রান্সফরমার পুড়ে যায়। এতে ময়মনসিংহ বিভাগের চার জেলা বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। বিদ্যুত সরবরাহ স্বাভাবিক হওয়ার আগেই আবার ১০ সেপ্টেম্বর আরেক দফা আগুন লেগে যায়। গত ২০ মে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারাতে পিজিসিবির উপকেন্দ্রে আগুন ধরে যায়। এর আগে এ বছরে গত ১১ এপ্রিল রাজধানীর রামপুরার উলন উপকেন্দ্রে আগুন ধরে। এটি পিজিসিবির উপকেন্দ্র হলেও উপকেন্দ্রটি ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি) কাছে হস্তান্তর করার প্রক্রিয়া চলছিল। ২০১৯ সালে চট্টগ্রামে একটি বিদ্যুত উপকেন্দ্রে আগুন ধরে। এ ছাড়া গত বছরে ২৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার কেরানীগঞ্জের মালঞ্চ এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের নবনির্মিত একটি বিদ্যুত উপকেন্দ্রে আগুনের ঘটনা ঘটে। এর আগে ২০১৮ সালে রাজধানীর পরিবাগে ডিপিডিসির উপকেন্দ্রে আগুন লেগে একটি ট্রান্সফরমার পুড়ে যায়।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT