ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বিশেষ মাস্ক তৈরি করলেন 17 বছরের ছাত্রী দিগন্তিকা বোস

প্রকাশিত : 07:32 PM, 12 October 2020 Monday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

করোনার থাবা যত প্রশস্ত হচ্ছে, ততই জোরদার হচ্ছে তাকে জয় করার লড়াই। সব বয়সের মানুষ সামিল সে লড়াইয়ে। কোভিড-19-এর সংকট থেকে দেশকে মুক্ত করার কাজে এবার এগিয়ে এলেন একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী দিগন্তিকা বোস। বর্ধমানের মেমারির এই ছাত্রী তৈরি করে ফেলেছেন এমন একটি মাস্ক যা ভাইরাসকে শুধু আটকানোই নয়, বিনষ্ট করে দেওয়ারও ক্ষমতা রাখে।

সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী দিগন্তিকার মাস্কটি তৈরি করতে সময় লেগেছে সাতদিন। তারপর অবশ্য মাস্কের কার্যকারিতা কতটা তা নিয়ে একাধিক পরীক্ষানিরীক্ষা হয়েছে। সব পরীক্ষায় পাশ হওয়ার পরে কেন্দ্র সরকারের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রক মাস্কটি কাজে লাগানোর জন্য দিগন্তিকার অনুমতি চায়। অস্বীকার করার প্রশ্নই ছিল না দিগন্তিকার তরফে।

কোভিড-19 রোগ প্রতিরোধ করার জন্য ন্যাশনাল ইনোভেশন ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। সেখানেই নিজের তৈরি মাস্কের নকশা জমা দিয়েছিলেন দিগন্তিকা। সংবাদমাধ্যমকে তিনি বলেছেন, “লকডাউন ঘোষণা হওয়ার দিন থেকেই আমি লক্ষ করছিলাম সবাই সাধারণ মাস্ক পরে ঘোরাফেরা করছেন। এই মাস্কের ভাইরাস আটকানোর ক্ষমতা নেই। তাই আমি চাইছিলাম আরও ফলপ্রসূ, আরও কার্যকরী কিছু বানাতে। তার জন্য আমাকে লেখাপড়াও করতে হয়েছে। এর আগে আমি রাজ্য সরকারের তরফে একাধিক পুরস্কার পেয়েছি, কিন্তু এই মাস্ক বানানোর পরে যে সাড়া আমি পেয়েছি, তার কোনও বিকল্প হয় না! এই অনুভূতি সত্যিই আলাদা!”

দিগন্তিকা বোস

দিগন্তিকার তৈরি মাস্কটির দুটি অংশ। প্রথম অংশে দুটি একমুখী ভাল্ভ রয়েছে এবং দ্বিতীয় অংশে রয়েছে দুটি রিজার্ভার কন্টেনার। শ্বাস নেওয়ার সময় একমুখী ভাল্ভের মাধ্যমে পরিষ্কার বাতাস ফুসফুসে ঢোকে, আর নিঃশ্বাস ফেলার সময় বাতাস কন্টেনারের মধ্যে দিয়ে বেরোয় এবং সেই সময়ই ভাইরাসের লিপিড প্রোটিন নষ্ট হয়ে যায়। কাজেই কোনও কোভিড আক্রান্ত রোগী যদি এই মাস্কের মধ্যে দিয়ে শ্বাস-প্রশ্বাস নেন, তা হলে তাঁর শরীর থেকে ভাইরাস আর বেরোতে পারে না।

দিগন্তিকা বলেছেন, “দেশ জুড়ে অতিমারী প্রশমিত করতে আমার মাস্ক সাহায্য করবে, ভাবতেই খুব ভালো লাগছে। কেন্দ্রীয় প্রযুক্তি মন্ত্রক আমাকে যে স্বীকৃতি দিয়েছে তা আমাকে খুবই উৎসাহ দিয়েছে। দেশের কাজে লাগতে পেরে আমি খুব খুশি আর গর্বিত।”

দিগন্তিকাকে আমাদের পক্ষ থেকেও রইল শুভেচ্ছা আর অভিনন্দন!

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT