শনিবার ২৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৬ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

উত্তর না দিলে মৌন সম্মতি ধরার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত : 07:44 AM, 2 June 2021 Wednesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্রের জন্য আবেদনের উত্তর না পেলে তা মৌন সম্মতি হিসাবে ধরে নিতে পারবেন আবেদনকারীরা। এমন নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, যদি একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে পরিবেশ অধিদপ্তর জবাব না দেয়, তবে দেরি করা যাবে না। সেটিকে মৌন সম্মতি ধরে কার্যক্রম এগিয়ে নিতে হবে। মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে এ নির্দেশ দেন তিনি। বৈঠক শেষে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান। এছাড়া নারায়ণগঞ্জে বিজিবির নতুন ব্যাটালিয়ন স্থাপনসহ ৯ প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এগুলো বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৫ হাজার ২৩৯ কোটি ৬২ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৫ হাজার ৪ কোটি ৩৯ লাখ এবং বৈদেশিক ঋণ থেকে ২৪৯ কোটি ৯৩ লাখ টাকা ব্যয়ের লক্ষ্য রয়েছে। রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে গণভবন থেকে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান। তিনি বলেন, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আবেদনে সাড়া না দিলে সম্মতি ধরার বিষয়টি ডুয়িং বিজনেসের উন্নতিতে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত। আমাদের পরিবেশ যেমন বাঁচাতে হবে, তেমনি উন্নয়ন কাজও করতে হবে। অন্যান্য শিল্প কারখানাও করতে হবে।

এসব বিবেচনায় প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশ খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

পরিকল্পনামন্ত্রী আরও জানান, কোনো প্রকল্পের আওতায় গাছ কাটা হলে সেখানে প্রচুর নতুন গাছ লাগানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। বলেছেন, বেশি বেশি গাছ লাগাতে হবে, যাতে পরিবেশের ক্ষতি পুষিয়ে যায়। এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাকাশ অবলোকন কেন্দ্র এলাকায় রেস্টুরেন্ট তৈরির নির্দেশও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, সেখানে এমন একটা পরিবেশ তৈরি করতে হবে যাতে তরুণ-তরুণীরাসহ যে কোনো বয়সের মানুষ বেড়াতে যেতে পারেন। ঘুরেফিরে দেখার মতো পরিবেশ যাতে তৈরি হয়। অপর নির্দেশনায় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নদীর সঙ্গে সংযোগ খাল যেন কোনোভাবেই বন্ধ না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। কেননা এসব খাল দিয়ে নদীর পানি যাতায়াত করে থাকে। অযথা স্লুইস গেট তৈরি করা যাবে না। পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, ‘বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের নবসৃজিত নারায়ণগঞ্জ (৬২ বিজিবি) ব্যাটালিয়নের অবকাঠামোগত বিভিন্ন স্থাপনা স্থাপন’ শীর্ষক প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ২৩৭ কোটি ২১ লাখ টাকা। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ঢাকার আশপাশে দেশের সিংহভাগ শিল্পকারখানা অবস্থিত। বিশেষ করে নারায়ণগঞ্জ শিল্পায়নের ক্ষেত্রে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। এজন্য সেখানকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতেই বিজিবির নতুন ব্যাটালিয়ন রাখা হচ্ছে। শিল্প পুলিশ থাকলেও মাঝে মধ্যে অন্য বাহিনীর সহায়তার প্রয়োজন হয়। সেই চিন্তা থেকেই এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

একনেকে অনুমোদিত অন্য প্রকল্প হচ্ছে, কুষ্টিয়া-মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহ আঞ্চলিক মহাসড়কটি কুষ্টিয়া থেকে মেহেরপুর পর্যন্ত যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ। এর ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৪৩ কোটি টাকা। এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহাকাশ অবলোকন কেন্দ্র প্রকল্প, ব্যয় ধরা হয়েছে ২১৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা। বাংলাদেশ ইকোনমিক জোনস ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৮১ কোটি ৩৮ লাখ টাকা। বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৮৮ কোটি টাকা। দরিদ্র মহিলাদের জন্য সমন্বিত পল্লি কর্মসংস্থান সহায়তা প্রকল্প (দ্বিতীয় পর্যায়) ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৪৬ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতি ও কমলনগর উপজেলাধীন বড়খেরী ও লুধুয়াবাজার এবং কাদের পণ্ডিতের হাট এলাকা ভাঙন থেকে রক্ষাকল্পে মেঘনা নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৮৯ কোটি ৯৭ লাখ টাকা। মাতারবাড়ী আল্ট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোল ফায়ার্ড পাওয়ার প্রকল্পের (পিজিসিবি অংশ : মাতারবাড়ী-মদুনাঘাট ৪০০ কেভি সঞ্চালন লাইন) ব্যয় ধরা হয়েছে ২৩২ কোটি ২৩ লাখ টাকা। উপজেলা পর্যায়ে মহিলাদের জন্য আয়বর্ধক প্রশিক্ষণ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০৭ কোটি ৮১ লাখ টাকা।

পরিকল্পনা মন্ত্রীর ব্রিফিংয়ের সময় উপস্থিত ছিলেন, পরিকল্পনা সচিব মোহাম্মদ জয়নুল বারী, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম, আইএমইডি সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী, পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের সচিব মোহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য মামুন-আল-রশিদ ও মোছাম্মৎ নাছিমা বেগম।

সূত্র যুগান্তর

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২২ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT