ঢাকা, বুধবার ০৩ মার্চ ২০২১, ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পিআইডি এর নিয়ম অনুসারে আবেদিত

অনিয়ম ও ধর্ষনের অভিযোগ রাজশাহী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের উচ্চমান সহকারী খাইরুজ্জামানের বিরুদ্ধে

প্রকাশিত : 08:46 PM, 15 September 2020 Tuesday

গণঅধিকার নিউজ ডেস্কঃ

রাজশাহী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের উচ্চমান সহকারী খায়রুজ্জামানের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মসহ শ্রমজীবি নারীকে প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, খাইরুজ্জান দীর্ঘদিন যাবৎ কাজ করছেন রাজশাহী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরে অফিস সহকারী পদে চাকরী করতেন । এরপর পদোন্নতি নিয়ে হয়েছেন উচ্চমান সহকারী । তিনি উদ্ধর্তন অফিসারদের মনোরঞ্জন করে একের পর এক নানা অনিয়মে জড়িয়েছে বারংবার, পেয়েছেন পদোন্নতি । অফিসের কেনাকাটা থেকে শুরু করে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠানের লাইন্সেন নবায়ন পাইয়ে দেওয়া বাবদ নিয়েছেন মোটা অংকের উৎকোচ । এছাড়াও নারী শ্রমিকদের বিভিন্ন প্রলোভন দিয়ে করেছেন শারীরিক সম্পর্ক । রাজশাহী অফিসের অন্যান্য অফিসার ও অফিস সহকারীদের তিনি তোয়াক্কা না করে, নিয়ম বহির্ভূত অন্য অ লের কাজেও তিনি হস্তক্ষেপ করেন । তার এহেন কাজে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে অফিসের অন্যান্য সদস্যরা । অন্যান্য সদস্যরা তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগও দিয়েছেন উদ্ধর্তন অফিসারকে । আউট সোর্সিং কর্মচারীদের সাথে প্রতিনিয়তই করে আসছে দূর্ব্যবহার । উদ্ধর্তন অফিসারকে ম্যানেজ করে চাকুরী শেষ করে দেওয়ার হুমকিও তিনি দিয়ে থাকেন ।

অনুসন্ধানে গিয়ে প্রত্যাক্ষদোশীদের সুত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি রাজশাহী দপ্তরে কাজ করার সুবাদে বিসিক শিল্পনগরী এলাকার অনেক নারী শ্রমিকদের সাথে তার সক্ষতা গড়ে উঠেছে । সক্ষতা গড়ে তোলা নারীদের মধ্যে একজন নারীকে নানা প্রলোভন দিয়ে কয়েকদফায় শারীরিক সম্পর্ক করেন তিনি । তার নানা অনিয়ম নিয়ে ইতিমধ্যেই সংবাদ প্রকাশও হয়েছে । সংবাদ প্রকাশের পর মুখ খুলতে শুরু করেছে ভূক্তভূগিরা । নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এরকম এক ভূক্তভুগি নারী জানান, যখন বিসিক এলাকায় এই দপ্তরটি ছিল তখন খায়রুজ্জামানের সাথে তার পরিচয় হয় । আমি বিসিকের একটি কারখানায় কাজ করতাম । কারখানা পরিদর্শনের নামে গিয়ে মাসিক চাঁদাও নিতেন উক্ত কারখানাগুলোতে । বিসিক এলাকায় অনেক নারী আছে যারা তার লালসার শিকার হয়েছেন । কেউ মুখ খুলতে পারে না, কারণ প্রতিষ্ঠানের মালিকরাই তাদের ভয় পায়, সেখানে একজন শ্রমিক কিভাবে এর প্রতিবাদ করবে ।
অভিযোগ পাওয়া যায় রাজশাহী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরে দীর্ঘ সময় অতিবাহিত করে নানা অনিয়ম আর দুর্নীতি করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে আঙুল ফুঁলে কলা গাছ হয়ে গেছেন উচ্চমান সহকারী খায়রুজ্জামান ।

এ বিষয়ে রাজশাহী কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের উচ্চমান সহকারী খায়রুজ্জামানের সাথে যোগাযোগ করার জন্য তার মোবাইল ফোনে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি ।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি দৈনিক গণঅধিকার'কে জানাতে ই-মেইল করুন- dailyganoadhikar@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

দৈনিক গণঅধিকার'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

এই বিভাগের জনপ্রিয়

© ২০২১ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। দৈনিক গণঅধিকার | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: DONET IT